মেইন ম্যেনু

অকারণেই প্রচন্ড দামী যে জিনিসগুলো

বিশ্বে ধনী মানুষ আছেন অনেক। তাদের অর্থ ব্যায়ের পথ আমাদের মত সাধারণ নয়। বরং অনেক শৌখিন, হেঁয়ালিপূর্ণ। তাদের চাহিদা পূরণে তৈরি হয়েছে এমন সব বিলাসদ্রব্য যার পেছনে অর্থ ব্যায়ের কথা আপনি-আমি চিন্তাও করতে পারবো না। এমন হাজারো খামখেয়ালী শখের কয়েকটি তুলে ধরছি এখানে।

১০০০ ডলারের ব্রেকফাস্ট
এই ব্রেকফাস্ট আইটেমটির নাম ‘জিলিয়ন ডলার লবস্টার ফ্রিটাটা’ এবং সাথে থাকে বেশ পরিমাণে ক্যাভিয়ার যার ১০ আউন্সের মূল্য ৬৫ ডলার। সকালের নাস্তায় এই অমলেটটি পাওয়া যায় নিউ ইয়োর্কের পার্কার মেরিডিয়ান হোটেলের নরমার রেস্টুরেন্টে।

দাবার গুটি, চার্লস হলান্ডার
৬ লাখ ডলারের এই অত্যধিক দামী দাবার সেটটিতে ৩২০ ক্যারেট সাদা-কালো হীরে ব্যবহার করা হয়েছিল। এর মাত্র ৭ কপি তৈরি হয়েছিল। শৌখিন দাবাড়ুরা ভেবে দেখুন সংগ্রহে রাখবেন কিনা!

ঘোড়া
‘গ্রীন মানকি’ নামের এই ঘোড়াটি ২০০৬ সালে বিক্রী হয় ১৬ মিলিয়ন ডলারে। ঘোড়াটি ৯.৮ সেকেন্ডে এক মাইলের আট ভাগের এক ভাগ দৌড়াতে পারত। বলা হত, এটি দৌড়ায় না। বরং উড়ে যায়! নিলামে ওঠার পর খুব সহজেই এর দাম উঠে যায় ১৬ মিলিয়ন ডলার। বিশ্বের সবচেয়ে লাভজনক শৌখিন ব্যবসার একটি তাই ঘোড়দৌড়।

ফ্লিউর বার্গার
৫০০০ ডলার দাম এই বার্গারটির। তৈরি করেছেন লাস ভেগাসের মান্দালায় বে তে অবস্থিত ফ্লিওর ডি লিস এর মালিক শেফ হাবার্ট কেলার। বার্গারে দেওয়া হয়েছে কোবে গরুর মাংস, ব্রয়েচ ট্রাফলস বানের উপর কালো ট্রাফলস। বার্গারের সাথে কিছু ফ্রাই আর ট্রাফল সস ও পরিবেশন করা হয়।

ফ্রোজেন হট চকোলেট
এই খাবারটি পাবেন নিউ ইয়র্কে। এটি একটি ডেজার্ট আইটেম। কোকো আর দুধের মিশ্রণ দেওয়া হয় ডেজার্টে। আর হ্যাঁ, সাথে দেওয়া হয় ৫ গ্রাম ২৪ ক্যারেট সোনা। সোনার একটি ব্রেসলেট, একটি সোনার চামচ সহ পরিবেশিত হবে খাবারটি। গিনেস বুক রেকর্ডে এটি সবচেয়ে অকারণে দামী খাবার হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল।

১ লাখ ডলারের মাসাজ
আপনার স্ট্রেস দূর করতে চান? হীরা দিয়ে? জ্বী, এই মাসাজটি দেওয়ার সময় ১.৫ ক্যারেট হীরা গুঁড়ো করে পাউডার বানানো হয় এবং সেটা ব্যবহার করা হয় শরীরে। সাথে অবশ্য লোহার গুঁড়াও মেশানো হয়। বলা হয়, এটি বয়স ধরে রাখতে সাহায্য করে।






মন্তব্য চালু নেই