মেইন ম্যেনু

অটুট যত্নে থাকুক শিশুর ত্বক

পুরোপুরি শীত জেঁকে না বসলেও শুষ্কতার কিন্তু কমতি নেই। বড়দের তুলনায় ছোটদের ত্বক নাজুক ও স্পর্শকাতর হওয়ায় ধকলটা পোহাতে হচ্ছে বেশি। আপনার বাচ্চাও সে ধকলের বাইরে নয়। কিন্তু কার ভালো লাগে, বাচ্চার মুখের সাবলীল হাসিতে বাধা, তুলতুলে গালে কালো ফাটল, হাত পায়ের ত্বক কুচকে যাওয়া দেখতে? শীতের এই শুষ্ক আবহাওয়াতে শিশুর ত্বক নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে সহজেই। তাই শিশুর ত্বকের অটুট যত্নের ব্যাপারে হতে হবে সতর্ক ও মনোযোগী-

গোসল

শিশুর শরীরের তেল ও ময়লা ধুয়ে ফেলতে নিয়মিত গোসল করানো জরুরি। চেষ্টা করতে হবে দুপুর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের গোসল সেরে নেয়ার। গোসল করানোর সময় সুগন্ধিবিহীন বাচ্চাদের সাবান ব্যবহার করতে হবে। গোসলের জন্য কুসুম গরম পানি ব্যবহার করতে পারেন। বেশি সময় না নিয়ে শিশুর গোসল সেরে নিতে হবে। এতে তার ঠাণ্ডা লাগার হাত থেকে বাঁচাবে। গোসল শেষে ভালো করে শরীর ও মাথা মুছে ফেলতে হবে। ব্যস, সারাদিনের জন্য ঝরঝরা হয়ে যাবে আপনার বাচ্চা।

ত্বকের আদ্রতা

গোসলের পরই জরুরি বিষয় হল বাচ্চার ত্বকে প্রয়োজনীয় ময়েশ্চারাইজার লাগানো। তবে লোশন বা ক্রিম লাগানোর আগে নিশ্চিত হতে হবে, সেটি সুগন্ধি, অ্যালকোহল ও ক্ষতিকর কোনো কেমিক্যাল বিহীন কিনা। তাই বাচ্চাদের উপযোগী ভালো মানের ব্র্যান্ডের প্রসাধনী ব্যবহার করতে হবে। শীতে শিশুর ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল ও ভিটামিন ই সমৃদ্ধ তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

ডায়াপার পরিবর্তন

শীতের আদ্রতা থেকে আপনার শিশুর ত্বক বাঁচাতে ঘন ঘন ডায়াপার পরিবর্তন করে দিতে হবে। বেশিক্ষণ ভেজা ডায়াপার থাকলে প্রথমত- ঠাণ্ডা লাগার ভয় থাকে, দ্বিতীয়ত- ত্বকে র‌্যাশ বা চুলকানি দেখা দিতে পারে। তাই শিশুর ডায়াপার ভেজা অবস্থায় বেশিক্ষণ পরিয়ে রাখা ঠিক নয়।

সুতি কাপড়

শীতের দিনে আরামদায়ক আর ঢিলেঢালা সুতির কাপড় বেছে নিতে পারেন। শিশুর ত্বকের অভ্যন্তরে বাতাস চলাচল করতে সুতি কাপড় দারুণ উপযোগী। এমনকি শিশুর ত্বক নরম রাখতেও সুতি কাপড় খুব কাজের।

পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার

আপনার ছোট্ট সোনামণির ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখতে হাতের কাছে সব সময় পেট্রোলিয়াম জেলি রাখতে পারেন। গোসলের পর সামান্য পরিমাণ পেট্রোলিয়াম জেলি হাতে নিয়ে হালকা করে শিশুর ত্বকে লাগিয়ে দিন। অন্যান্য সময় যখনই শিশুর হাত পা খসখসে মনে হবে একটু পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে দিলে ত্বক নরম হবে।

শিশুকে সকালের নরম রোদে কিছুটা সময় খেলতে দিন। সকালের রোদ শিশুর ত্বকে ভিটামিন ডি-এর জোগান দেবে। বাজার ভরে উঠছে শীতকালীন ফলে, শিশুকে নিয়ম করে কমলা খাওয়াতে পারেন। কমলার রস শিশুর ত্বকের জন্য খুব দরকারি। শিশুর সুষম খাদ্য নিশ্চিত করুন। প্রতিবেলা খাবারে শাকসবজি রাখতে চেষ্টা করুন।






মন্তব্য চালু নেই