মেইন ম্যেনু

অতিরিক্ত আনন্দ মানুষের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে

মানুষের জীবনে আনন্দ, খুশি থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে কখনো যেন এর মাত্রা ছাড়িয়ে না যায়। কারণ এর ফলে নানাবিধ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ও সমস্যা। সুইস এক গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত আনন্দের মুহূর্তগুলোয় বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্টের মতো সমস্যা তৈরির পাশাপাশি মানুষের হৃদপিণ্ডের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। দ্য ইউনিভার্সিটি হসপিটাল জুরিখের একদল গবেষক গবেষণাটি চালায়। এর ফলাফলে দেখা যায়, অতিরিক্ত রাগ বা ভয়ের অনুভূতি কখনও কখনও মানুষের মৃত্যুর কারণ হয়। আবার একইভাবে বেশি আনন্দের ফলেও মানুষের মৃত্যু হতে পারে।

উভয়ক্ষেত্রেই হার্টের একটি অংশ অতিরিক্ত প্রসারিত হয়। ফলে সেটি বাড়তি চাপ তৈরি করে। গবেষক দলের একজন জানান,প্রতি ২০ জনে অন্তত একজন অর্থাৎ ৫ শতাংশ মানুষ অতিরিক্ত আনন্দের খবরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে কিছুক্ষণ পরই ভালো বোধ করেন তারা। তিনি আরও বলেন, অতি আনন্দের কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়াটা একটি সাময়িক সমস্যা। এটি সব সময় মারাত্মক আকার ধারণ করে না। অতিরিক্ত আনন্দ এবং কষ্টের সময় প্রতিক্রিয়া জানতে ১৭৫০ জন মানুষের উপর গবেষণাটি চালানো হয়। এতে দেখা গেছে, অতিরিক্ত আনন্দের খবরে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা এখনও অনেক কম।

তবে জন্মদিনের অনুষ্ঠান, ছেলে-মেয়ের বিয়ে, দীর্ঘ সময় পর কোনো পুরনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা, ছেলে-মেয়ের সন্তানের জন্ম, প্রিয় দলের জয় এবং ক্যাসিনোর জ্যাকপট জয়ের ফলে হৃদপিণ্ডজনিত জটিলতা সৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি থাকে। এদিকে, এজন্য আনন্দ হাসি থেকে বিরত না থাকতে পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। তাদের মত, প্রাণ খুলে হাসুন। হাসি আপনার মনের কষ্টকে দূর করে দেবে। সেইসঙ্গে আনন্দকে অনেক বাড়িয়ে দেবে। যেকোনো পরিস্থিতি আপনাকে সুস্থ রাখতে হাসির ভূমিকা অনেক বেশি।






মন্তব্য চালু নেই