মেইন ম্যেনু

অনলাইনে আয়: সর্বোচ্চ আনা যাবে ৫০০০ ডলার

বিদেশে সেবা রফতানির বিপরীতে পাওয়া অর্থ অনলাইনে দেশে আনার সর্বোচ্চ সীমা বাড়ালো বাংলাদেশ ব্যাংক। পূর্বানুমতি ছাড়া এখন থেকে একজন ব্যক্তি অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সার্ভিস প্রোভাইডারদের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৫০০০ ডলার পর্যন্ত দেশে আনতে পারবেন। এতোদিন এ উপায়ে সর্বোচ্চ ২০০০ ডলার আনা যেতো।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ থেকে বর্তমানে অনলাইনে ডাটা এন্ট্রি, ডাটা প্রসেসিং, বিজনেস প্রসেসিং, বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিংসহ নানা ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সেবা রফতানি হচ্ছে। অনলাইনে প্রতি মাসে এধরনের দুই হাজরের বেশি লেনদেনের বিপরীতে এক লাখ ডলারের মতো আয় হচ্ছে। সম্ভাবনাময় খাত হিসেবে সেবা রফতানির বিপরীতে অনলাইনে অর্থ আনার সীমা বাড়ানো হলো। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে বর্তমানে এ উপায়ে ১০ হাজার ডলার পর্যন্ত আনার সুযোগ রয়েছে।

এক সময় অনলাইনে সেবা রফতানি থেকে পাওয়া যে কোনো পরিমাণের অর্থ দেশে আনতে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি নিতে হতো। পরবর্তীতে ২০১১ সালে এক নির্দেশনার মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্ধারিত ‘সি’ ফর্মে ঘোষণা দিয়ে ৫০০ ডলার পর্যন্ত আনার সুযোগ দেওয়া হয়।

তবে ঘোষণা দেওয়ার এ পদ্ধতির কারণে বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান অর্থ পরিশোধে বিব্রত বোধ করছিলো। যে কারণে পরের বছর নীতিমালা আরও সহজ করে কোনো ঘোষণা ছাড়া দুই হাজার ডলার পর্যন্ত আনার সুযোগ দেওয়া হয়। তবে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনকারী ব্যাংকগুলোকে প্রতি মাসে এ বিষয়ে তথ্য দিতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই