মেইন ম্যেনু

অনলাইনে বন্ধুত্ব: হোটেলে রাতভর কিশোরীকে ধর্ষণ

সোশ্যাল মিডিয়া কাউকে সাফল্যের শিখরে নিয়ে যায়, তো আবার কারও সর্বনাশ ডেকে আনে৷ চ্যাটিং ওয়েবসাইটে বন্ধুত্ব করে ধর্ষিতা হল ১২ বছরের কিশোরী৷ এক হাজার মাইলেরও বেশি পথ অতিক্রম করে এসে কিশোরীকে ধর্ষণ করে তার সেই ‘পাতানো’ বন্ধু৷ নাম মার্ক গ্রিনাল৷ ইংল্যান্ডের একটি আদালতে মামলাটি বিচারাধীন৷

মিরর-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, কয়েকটি মেসেজেই জমে উঠেছিল তাদের বন্ধুত্ব৷ চ্যাটিংয়েই একে অপরের নম্বর নিয়েছিল তারা৷ মিষ্টি মিষ্টি কথায় কিশোরীকে সহজেই বশে এনে ফেলে মার্ক৷ এতটাই বিশ্বস্ত হয়ে উঠেছিল সে যে, ওই স্কুল ছাত্রী সাত-পাঁচ না ভেবে মোবাইলে নিজের নগ্ন ছবিও পাঠিয়ে দেয়৷

সেই ছবিকেই ব্ল্যাকমেলের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে মার্ক৷ কিশোরীকে একাধিকবার তার সঙ্গে যৌনতার প্রস্তাব দেয় অভিযুক্ত৷ কিন্তু মেয়েটি তাতে রাজি হয়নি৷ রাগে তার নগ্ন ছবি একটি ওয়েবসাইটে পোস্ট করে দেয় মার্ক৷ পেজটির স্ক্রিনশট নিয়ে পাঠিয়ে দেয় কিশোরীর মোবাইলে৷

ভয়ে দিশাহারা হয়ে মার্কের সঙ্গে দেখা করতে রাজি হয় সে৷ লিভারপুলে নিজের বাড়ি থেকে প্রায় ১০০ মাইল দূরে নিউনিয়াটনের একটি হোটেলে এসে কিশোরীকে ধর্ষণ করে সে৷ জানা গিয়েছে, রাতে ধর্ষণের পর পরের দিন সকালে ফের কিশোরীকে যৌন মিলনের প্রস্তাব দেয় ২৬ বছরের যুবক৷ তার কথা মতোই কাজ হয়৷ তারপর একসঙ্গে স্নান করে হোটেল ছাড়ে দু’জন৷

পুরো ঘটনার কথা ফেসবুকের একটি মেসেজ থেকে জানতে পারেন ধর্ষিতার মা৷ তিনিই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন৷ তারপরই গ্রেফতার করা হয় মার্ককে৷ তার জামিনের আবেদন খারিজ করেছে আদালত৷ মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী মাসে৷






মন্তব্য চালু নেই