মেইন ম্যেনু

অন্তহীন সমস্যায় রিও অলিম্পিক

একদিন পরেই ব্রাজিলে বসছে অলিম্পিকের মেগা ইভেন্ট। ফুটবলের দেশ ব্রাজিল। রোনালদো-রোমারিও-রোনালদিনহোর আর এ সময়কার সুপারস্টার নেইমারের জন্যই আমাজনের ঘন জঙ্গলে ঢাকা দেশটিকে চেনে গোটা বিশ্ব। এবার নতুন করে ব্রাজিলকে চিনতে যাচ্ছে রথী-মহারথীরা। কারণ, বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ক্রীড়া আসর অলিম্পিকের দামামায় মেতে উঠেছে সবাই। এরই মধ্যে ব্রাজিলে পৌঁছে গেছেন অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর অ্যাথলেট ও কর্মকর্তারা।

কেমন হবে এবারের রিও অলিম্পিক? এ নিয়ে মানুষের মধ্যে যেমন ভালো কিছুর প্রত্যাশা রয়েছে তেমনি রয়েছে শঙ্কাও। মজার ব্যাপার হল, গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক হলেও আয়োজক দেশ ব্রাজিলে এখন শীতকাল। প্রথমবারের মতো শীতের মৌসুমে গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক আয়োজন হবে।

শীত-গ্রীষ্মের চেয়ে রিও অলিম্পিকের সবচেয়ে বড় সমস্যা নিরাপত্তা। কারণ ইতোমধ্যে জঙ্গি হামলার টার্গেটে রয়েছে রিও। পরিণত হতে পারে রিও। রয়েছে স্বাস্থ্য সমস্যার প্রকট ঝুঁকিও। গেল কয়েক মাস ধরে দেশটিতে জিকা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করেছিল। তার প্রভাবে অনেক ক্রীড়াবিদ রিও অলিম্পিকে অংশ নিতে চাচ্ছেন না।

এ ছাড়া দেশটির বেশিরভাগ হ্রদ ও সৈকতের পানি দূষিত হয়ে পড়েছে। সেক্ষেত্রে পানির ইভেন্টে অংশগ্রহণ করলে তাদেরকে মুখ বন্ধ করে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তাররা। নাহলে তাদের অসুস্থ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিশ্ব গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

দেশটিতে চলেছে রাজনৈতিক অস্থিরতাও। দেশটির নারী প্রেসিডেন্ট দিলমা রৌসেফের অভিশংসন ঝুলে আছে। তাঁর বিরোধীরা কিছু দিন আগেও ব্যাপক বিক্ষোভ মিছিল করেছিল। আর বামপন্থী সরকারের অনেক সিদ্ধান্তে জনগণও দ্বিমত পোষণ করেছে। সরকারের বিরুদ্ধে রয়েছে দুর্নীতির অভিযোগও।

এদিকে অলিম্পিক ভিলেজ থেকে শুরু করে স্টেডিয়াম পর্যন্ত এখনও অনেক কাজই বাকি। অথচ একদিন বাদেই শুরু রিও অলিম্পিক৷ জিকা ভাইরাস থেকে শুরু করে চুরি, ছিনতাই আর রাহাজানির পর এবার অ্যাথলেটদের সতর্ক হতে হচ্ছে বন্যপ্রাণীর জন্যও৷

কুমির ও অন্যসব ভয়ানক বন্যপ্রাণী থেকে সাবধান হতে বলছে রিও কর্তৃপক্ষ। অলিম্পিকের জন্য যে নতুন গলফ মাঠগুলো তৈরি করা হয়েছে তাঁর চারপাশেই রয়েছে হ্রদ৷ আর ওই হ্রদেই কুমির ও একাধিক ভয়ঙ্কর সরীসৃপের বাস৷ যে কারণে গলফ খেলা চলাকালীন কমপক্ষে পাঁচজন করে জীববিজ্ঞানীরা উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে৷ অলিম্পিক পার্কের খেলোয়াড় ও দর্শকদের সতর্ক করবেন জীববিজ্ঞানীরা।

প্রসঙ্গত, ৫ আগস্ট রিও ডি জেনিরোর বিশ্বখ্যাত মারাকানা স্টেডিয়ামে বসবে অলিম্পিক গেমসের আসর। শেষ হবে ২১ আগস্ট। এবারের টুর্নামেন্টে ২৮ খেলার মোট ইভেন্ট ৩০৬টি। নতুন ইভেন্ট রাগবি। নতুন দেশ হিসেবে রিও অলিম্পিকে অংশ নেবে আফ্রিকার দেশ দক্ষিণ সুদান। ৩৩টি ভেন্যুতে এবার অলিম্পিকের ইভেন্টগুলো অনুষ্ঠিত হবে। তাছাড়া দেশটির সবচেয়ে বড় শহর সাও পাওলো, রাজধানী ব্রাসিলিয়া, মানাউশ ও সালভাদরেও ভেন্যু করা হয়েছে।

সবমিলিয়ে এতসব প্রতিবন্ধকতা টপকে কতটুকু সফল হবে এবারের রিও অলিম্পিক?






মন্তব্য চালু নেই