মেইন ম্যেনু

অন্ধ যুগলের সাত বছর প্রেম, অতঃপর গোপনে বিয়ে

দীর্ঘ ৭ বছর ধরে প্রেম করার পর এক মাস আগে গোপনে বিয়ে হয় দুই দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর। এদের একজনের বাড়ি রাজশাহীর তানোর উপজেলার চাপড়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের হাসেম মেম্বারের মেয়ে সুফিয়া আকতার মালা(২৩)। অন্যজনের বাড়ি রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার বড়দরবহ গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের রেজাউলের পুত্র সিহাব মণ্ডল(২৪)।

জানা যায়, প্রেমের টানে গোপনে বিয়ে করার কারণে মালার পরিবার মেনে নিতে নারাজ। এ কারণে তারা এক মাস ধরে একত্রিত হতে পারেননি। বিষয়টি জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি রাজশাহী অফিসের নজরে এলে ওই দম্পতিকে আজ শনিবার মিলিত করে দেয়া হয়। পরে কনের বাড়িতে ঘটা করে বিয়ের আয়োজন করা হয়।

প্রেমিক যুগল জানান, চলতি বছরের ২২ আগস্ট তারা গোপনে রাজশাহী নগরীর এক কাজী অফিসে বিয়ে করেন। বিয়ের তিনদিন পর মালা তার পিতার বাড়িতে যায়। এরপর ওইদিন থেকে তাকে বাড়িতে বন্দি রাখা হয়। পরে প্রেমিক সিহাব জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির রাজশাহী অফিসে বিষয়টি অবহিত করেন।

সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান এ্যাডভোকেট দিল সেতারা চুনি ও প্রোগ্রাম অফিসার আব্দুস সামাদ খাঁনের সহযোগিতায় প্রেমিকা সুফিয়ার বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করে প্রেমিক সিহাবের হাতে তুলে দেন। এসময় মালার পরিবার তাদের ভুল বুঝতে পেরে মেয়ে ও জামাইকে দোয়া করেন। পরে ধুমধাম করে বিয়ের অনুষ্ঠান হয়।

এব্যাপারে জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান এ্যাডভোকেট দিল সেতারা চুনি জানান, তারা প্রাপ্ত বয়স্ক। প্রেমে করে তারা বিয়ে করেছে। কিন্তু মালার পরিবার তা মেনে নিতে পারছিলেন না। ফলে পরিবারের লোকজনকে বুঝিয়ে বিয়ের আয়োজন করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই