মেইন ম্যেনু

অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করলো গুগল

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সার্চইঞ্জিন গুগলের সহায়তায় উদ্ধার করা হয়েছে অপহৃত বেলজিয়ান এক ব্যবসায়ীকে।

বেলজিয়ামের প্রত্যন্ত এক এলাকা থেকে বন্ধুকধারীরা তাকে অপহরণ করেছিল।

অপরহরণকারী ৫১ বছর বয়সী জন ক্লার্ক স্প্যান্সি। তিনি স্যান্ডার কোকল্যারিকে অপরহরণ করে দশ হাজার পাউন্ড মুক্তিপণ দাবি করেছিলেন।

লোহার বিভিন্ন বস্তু প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের মালিক স্প্যান্সি। কিছুদিন ধরে ব্যবসায়িক মন্দা যাচ্ছিল তার। এজন্য তার মাথায় খেলে এক দুষ্টু বুদ্ধি। ভুয়া নাম-পরিচয় দিয়ে খুলে ফেলেন একটি ই-মেইল। সেখান থেকে গ্রাহক সেজে কথা শুরু করেন কোকল্যারির সঙ্গে।

কোকল্যারির কাছে তিনি নিজেকে ভবন নির্মাতা হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন। চুলের স্ট্যাইল পরিবর্তন করে মাথায় হ্যাট এবং চোখে সানগ্লাস দিয়ে নিজেকে সম্পূর্ণ অন্য একজন বানিয়ে ফেলেন স্প্যান্সি। এরপর চলে কোকল্যারির সঙ্গে কথোপকথন। একপর্যায়ে তারা ৩০জুন দেখা করবেন বলে ঠিক করেন।

দিনক্ষণ মেনে দেখাও হয়। এরপর কোকল্যারিকে আরেকজন সম্ভাব্য গ্রাহকের সঙ্গে দেখা করাতে নিয়ে যান স্প্যান্সি। এই বলে নির্জন এক গ্রামের প্রত্যন্ত জায়গায় নিয়ে যান তাকে। সেখানে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার কাছে ব্যাংকের পিন নম্বর চান স্প্যান্সি।

প্রথমে স্প্যান্সি ব্যাংক থেকে ৫শ’ পাউন্ড তুলে নেন। এরপর কোকল্যারিকে বলেন তার মালিক পিটার ক্যাস্ত্রোকে বলো, তোমার ব্যাংক হিসাবে ৪৫ হাজার পাউন্ড পাঠিয়ে দিতে।

স্প্যান্সি ক্যাস্ত্রোকে বলেন, তুমি যদি আমার কথা মতো কাজ না করো এবং পুলিশকে খবর দাও তাহলে আমি কম্পিউটার হ্যাক করে তোমাকে শিশু পর্নগ্রাফি ডাউনলোড এবং কোকেনের ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ফাঁসিয়ে দেবো।

যদিও স্প্যান্সির অজান্তেই কোকল্যারি তার মোজার ভেতর লুকিয়ে রাখা ফোন বের করে। এই সুযোগে একটি ছবি তুলে ক্যাস্ত্রোর কাছে পাঠিয়ে দেয়। গুগলের সহায়তায় স্থান খুঁজে পেতে সময় লাগেনি ক্যাস্ত্রোর। ব্যস সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ এসে হাজির।

হুমকি, অপরহরণ, চুরি এবং প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে স্প্যান্সির বিরুদ্ধে।

এখন আটবছর কারাবাসের সাজা ভোগ করছে স্প্যান্সি।






মন্তব্য চালু নেই