মেইন ম্যেনু

অপারেশনের সময় তরুণীর অ্যাপেনডিসাইটিসে পাওয়া গেলো কনডম!

বেশ ক’দিন ধরে পেটের যন্ত্রণায় কাতর নারী। খাবারে অরুচি। বমি বমি ভাব। সঙ্গে জ্বর। ডাক্তার দেখালেন। উপসর্গ বুঝে স্ক্যান করার পরামর্শ দিলেন ডাক্তার।

স্ক্যান রিপোর্টে দেখা গেল, নারীর তলপেটে ফ্লুইডের মতো কিছু জমেছে। একইসঙ্গে অ্যাপেনডিসাইটিসের লক্ষ্ণণও দেখা গেল। রিপোর্ট দেখে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নিলেন ডাক্তার। নির্দিষ্ট দিনে অ্যাপেনডিক্স অপারেশন হলো মহিলার। অপারেশনের পর তো চক্ষু ছানাবড়া ডাক্তারদের। মাংসপিণ্ডটি থেকে আস্ত একটি কনডম বেরিয়েছে যে। ঘটনা ক্যামেরুনের।

মেডিক্যাল ইতিহাসে এ ধরনের ঘটনা প্রথমবার ঘটেছে বলে অনুমান চিকিৎসকদের। কিন্তু, অ্যাপেনডিক্সের মধ্যে কনডম এল কোথা থেকে ? রহস্য খোলসা করেন বছর ছাব্বিশের ওই নারী নিজেই। সপ্তাহ দুয়েক আগে তিনি ঘটনাক্রমে কনডমটি গিলে ফেলেছিলেন। তখন তিনি বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ছিলেন। এবং সংগম চলাকালীন ঘটনাটি ঘটে।

দিন পাঁচেক পরে টয়লেটে গিয়ে কনডমের পায়খানার সঙ্গে কনডমের টুকরো দেখতে পাওয়ায় মহিলা ভেবেছিলেন ভয়ের কিছু নেই।

চিকিৎসকদের অনুমান, কনডমটি টুকরো টুকরো হয়ে গিয়ে কিছুটা ওই নারীর শরীরের বাইরে বেরিয়ে আসে। বাকিটা অ্যাপেনডিক্সে গিয়ে জমা হয়। তারপর সেখানে সংক্রমণ ঘটে। তা থেকেই যত বিপত্তি।

অ্যাপেনডিক্সে কনডম মেলার ঘটনা এই প্রথম হলেও এর আগে অবশ্য বুলেট, কয়েন, পাথর, পিন, হাড়ের টুকরো, চুল ইত্যাদি অ্যাপেনডিক্স থেকে মিলেছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অনেকক্ষেত্রে অ্যাপেনডিক্সে এসব ধরনের জিনিস আটকালেও কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নাও হতে পারে। জার্নাল অফ মেডিক্যাল কেস রিপোর্টসে বিষয়টি নিয়ে লেখালেখি করেছেন চিকিৎসকরা।






মন্তব্য চালু নেই