মেইন ম্যেনু

অপুর শাকিব নির্ভরতা

শাকিব খানকে গিরেই অপু বিশ্বাসের যত সফলতা। শুরু থেকে এ পর্যন্ত হাতেগোনা কয়েকটা ছবি ব্যতীত সবটিতেই অপু অভিনয় করেছেন শাকিবের বিপরীতে। প্রত্যাশা অনুযায়ী সফলতাও এসেছে মুক্তি প্রাপ্ত ওই চলচ্চিত্রগুলো থেকে। কিন্তু সমালোচকদের দাবি- শীর্ষ স্থানীয় নায়কের বিপরীতে অভিনয় করাই অপুর সফলতার কারণ। অন্য কোনো নায়কের বিপরীতে অভিনয় করে সাফল্য পাওয়ার আত্মবিশ্বাস তিনি এখনো তৈরি করতে পারেননি। যদিও অপু বরাবরই দাবি করছেন, দর্শক চাহিদার কারণেই বারবার শাকিবের সাথে অভিনয় করেন তিনি। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, অন্য নায়কের বিপরীতে কেন তিনি চাহিদা সৃষ্টি করতে পারেন না? অপু জবাব দিলেন একটু অন্যভাবে, ‘আমি কখনো গতানুগতিক ধারার ছবিতে কাজ করিনি। ভাবিষ্যতেও করব না। আর বাংলাদেশে শাকিব ছাড়া ভালো গল্পের ছবি পাওয়া দুস্কর। দেখা গেছে অন্য নায়কদের নিয়ে পরিচালকেরা যে ছবি তৈরি করেন। সেগুলোতে বাজেট অনেক কম। স্বল্প বাজেটের ছবিতে গল্পটাও হয় দুর্বল। তাই আমাকে অন্য নায়কের বিপরীতে কম দেখা যায়।’ তিনি বলেন, ‘আমি চাই সবার সাথে কাজ করতে। শাকিব আমার স্পেশাল কেউ না। তবে ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষ নায়ক হিসেবে তার সাথে কাজ করার আগ্রহ যে আমার রয়েছে সেটাও অস্বীকার করতে চাই না।’

সম্প্রতি অন্য একজন নায়িকাকে বাদ দিয়ে শাকিবের বিপরীতে অপুকে নেয়ায় নতুন সমালোচনা শুরু হয়েছে। চলতি মাসের ৭ তারিখ ‘রাজনীতি’ ছবিতে তিনি পিয়া বিপাশার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। চলচ্চিত্রে অভিষেক হওয়ার অপেক্ষায় থাকা নবাগতকে বাদ দেয়ার পেছনের কারণ এখনো জানা যায়নি। এ প্রসঙ্গে অপু বলেন, ‘পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস আমাদের জুটির অনেক হিট ছবি দেখে ‘রাজনীতিতে’ দুইজনকে একসাথে করেছেন। আগে এই চরিত্রে অন্য একজনের অভিনয় করার কথা ছিল। তাকে কেন বাদ দেয়া হয়েছে সে সম্পর্কে আমি কিছু জানি না।’ অপু না জানলেও নিন্দুকেরা বলছেন, শাকিব-অপুর প্রেমের কথা। অপু এই বিষয়টাকে অস্বীকার করেছেন বেশ জোড়ালোভাবে, ‘আমরা দু’জন সহকর্মী হিসেবে একে অপরকে ভালো বুঝি, ভালো বন্ধু আমরা। আর কিছু নয়।’

তিনি বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠান রেকর্ড করেছি সম্প্রতি যেখানে আমার সাথে অতিথি ছিলেন শাকিব। সেখানে আমি বলেছি, শাকিবের বিয়েতে আমি নাচব। ডালা-কুলা যারা বহন করবেন তাদের নেতৃত্ব দেবো। অনেক মজা করব। বন্ধু বলেই কিন্তু এই কথা আত্মবিশ্বাসের সাথে বলতে পেরেছি।’
এ দিকে ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ‘রাজাবাবু’। এখানেও অপুর বিপরীতে শাকিব। এটি নিয়েও অপুর উচ্ছ্বাসের শেষ নেই। তিনি বলেন, ‘আগে ছবি মুক্তি পাওয়ার আগে অনেক টেনশন হতো। কী জানি কী হয়! কিন্তু এখন আমি পাকাপোক্ত হয়ে গেছি। এককথায় আমি আশাবাদী ‘রাজাবাবু’ ছবিটি নিয়ে।






মন্তব্য চালু নেই