মেইন ম্যেনু

অফিসে কানাঘুষা: পরিস্থিতি সামলাবেন যেভাবে

কিছুদিন ধরে রুমার অফিসের পরিবেশ কেমন যেনো প্রতিকূল ঠেকছে। সারাক্ষণ মনে হচ্ছে কেউ কেউ যেনো অযথাই তাকে নিয়ে নানা কল্পকাহিনী রটাচ্ছে। এমন পরিস্থিতির শিকার হতে হয় বেশিরভাগ চাকরিজীবীদের।

গসিপ পছন্দ করেন না এমন মানুষের সংখ্যা কম৷ সে বলিউড তারকাদের জীবন নিয়েই হোক আবার ব্যক্তিগত জীবন হোক৷ তবে সে সবের থেকে অনেকটাই আলাদা অফিস গসিপ৷ একসঙ্গে অনেকে থাকলে গসিপ একটু আধটু থাকবেই৷ কিন্তু নেতিবাচক অফিস গসিপ কাজের পরিবেশ নষ্ট করে। এটি কর্মীদের কাজের মানেও বিরূপ প্রভাব ফেলে।

যদি মনে হয়, আপনার সম্পর্কে কেউ মিথ্যে খবর ছড়াচ্ছে, তাহলে প্রথমে মাথা গরম করে ঝগড়া বাঁধিয়ে বসবেন না৷ যিনি এই কাজ করছেন বলে আপনার মনে হয়, তিনি তো আপনারই সহকর্মী৷ তার সঙ্গে আপনাকে কাজও করতে হবে৷ তাই বিষয়টা পরিষ্কার করে নিন৷ তার মুখোমুখি হওয়ার আগে, কেন তিনি এটা করছেন, সেটা বোঝার চেষ্টা করুন৷ মাথা ঠাণ্ডা রাখলে এই সমস্যার মোকাবিলা করতে সুবিধা হবে৷

অকারণ কানাঘুষা আপনাকে মানসিক ভাবে দুর্বল করে দিতে পারে৷ অযথা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়বেন না৷ বরং নিজেকে শক্ত রাখুন। যারা আপনাকে নিয়ে কানাঘুষা করছে, তারা চান আপনি রেগে গিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখান।

আগেই বলেছি কেন কানাঘুষা ছড়ানো হচ্ছে, সেই কারণটা অনুধাবন করুন৷ এতে আপনার কতটা পেশাদার ক্ষতি হতে পারে খতিয়ে দেখুন৷ যদি দেখেন খুবই সামান্য ব্যাপার তাহলে বরং এই ধরনের বিষয়কে আমলে নেয়ার প্রয়োজন নেই। এই সমস্যার সমাধানে এটা দ্বিতীয় ধাপ৷ আপনি পাত্তা না দিলে যারা আপনার বিরুদ্ধে কানাঘুষা করছে, তারা উৎসাহ হারাবে।

যদি দেখেন উপেক্ষা করে কোনো ফল হচ্ছে না, বরং উত্তরোত্তর তা বেড়ে চলেছে, তাহলে অবশ্য পরিস্থিতি শক্ত হাতে মোকাবিলার সময় এসেছে৷ যিনি আপনার সম্পর্কে এই ধরনের নেগেটিভ গসিপ ছড়াচ্ছে, তার কাছে সরাসরি এর কারণ জানতে চান৷ তবে সবার সামনে নয়, আলাদা করে জানতে চান৷ কথা বলার সময় যতটা সম্ভব, তার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ ব্যবহার করুন৷ যদি দেখেন তিনি আপনার সম্পর্কে কোনো ভুল ধারণা থেকে এই কাজ করেছেন, তাহলে বিষয়টা পরিষ্কার করে বলুন৷ তবে যদি বোঝেন তিনি ইচ্ছাকৃত এই গসিপ ছড়াচ্ছেন, তাহলে কঠোর হওয়ার সময় এসেছে৷ তাকে কঠিন ভাবে জানিয়ে দিন এই ধরনের আচরণ এরপর থেকে আর সহ্য করবেন না৷

অফিসে সব সহকর্মীই যে আপনার বিরুদ্ধে গসিপ ছড়াচ্ছে এমন তো নয়। বরং এরকম কয়েক জনের কাছে, যাকে আপনি বিশ্বাস করতে পারেন, তাকে সমস্যার কথা জানান৷ আপনার পাশে দাঁড়াবে এমন কিছু মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করুন৷ তাতে যারা গসিপ ছড়িয়ে আপনার ক্ষতি করতে চাইছে, তারা বুঝবেন আপনি একা নন| এর ফলে তারা সাবধান হয়ে যেতে পারেন৷যদি দেখেন পরিস্থিতি আর সত্যিই আপনার হাতে নেই, তাহলে বেশি দেরি না করে অফিসের মানবসম্পদ উন্নয়ন বিভাগকে জানান৷ যা ব্যবস্থা নেয়ার তারাই নেবেন৷






মন্তব্য চালু নেই