মেইন ম্যেনু

অবশেষে ভ্যাট প্রত্যাহার ঘোষণা

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশনি ফি’র উপর অরোপিত সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট সম্পূর্ণ ভাবে প্রত্যাহার করেছে সরকার। এর ফলে জনজীবনে স্বস্তি ফিরে এলো।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত তার কার্যালয়ে ফিরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমানের সঙ্গে বৈঠক করেন। পরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সরকারের এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘যারা বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনেক খরচ করে শিক্ষা গ্রহণ করছেন তারা এজন্য অতিরিক্ত সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট দিতে চান না। সেজন্য তারা ক্লাস ছেড়ে দিয়েছেন, বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে জনজীবন বিঘিœত করছেন এবং উন্নয়নের যাত্রাপথে বাধার সুযোগ করে দিচ্ছেন। সরকার কোনমতেই শিক্ষাঙ্গনে কোন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চায় না এবং জনজীবনে অসুবিধারও সৃষ্টি করতে চায় না। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করে সরকার ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ওপর যে সাড়ে ৭ শতাংশ মূসক আরোপিত হয় সেটি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

এতে আরো বলা হয়, ‘সরকার আশা করে যে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকবর্গ তাদের আন্দোলন বন্ধ করে শিক্ষাঙ্গনে ফিরে যাবেন এবং দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় কোন ধরনের বাধা সৃষ্টির সুযোগ দেবেন না।’

বর্তমানে শিক্ষার প্রতি মানুষের আগ্রহ বেড়েছে জানিয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘অনেকেই অতি নির্দিষ্ট সামর্থের মধ্যেও ছেলেমেয়েদের শিক্ষার জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় করে থাকেন। ব্যক্তি মালিকানা খাতের প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা ব্যয়বহুল। আপনারা জানেন যে, শিক্ষাখাত প্রধানমন্ত্রীর কাছে সবচেয়ে অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত খাত। তার বিশ্বাস যে, জাতিকে শিক্ষা দিলেই দেশের উন্নয়নের পথে অগ্রযাত্রা দ্রুতগতি লাভ করে। শিক্ষার উন্নয়নের জন্য সরকার প্রায় ৩৩ কোটি পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে প্রদান করে। প্রচুর ছাত্র-ছাত্রীকে বৃত্তি প্রদান করে, খাদ্য সহায়তা দেয় এবং শিক্ষক সৃষ্টিতে ব্যাপক অবদান রাখে।’

এর আগে গতকাল রোববার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউশন ফি’র ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহারের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিকেলে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘ভ্যাট নিয়ে যে জটিলতা হয়েছে, সে বিষয়টির একটি সম্মানজনক সমাধানে পৌঁছানো যাবে। শিগগিরই এই সমস্যার সমাধান হবে।’

তিনি বলেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভ্যাট নিয়ে যে জটিলতা দেখা দিয়েছে, সে বিষয়ে সরকার অনড় নয়। গত ছয় বছরে আমরা অনেক বিষয়ে পর্যালোচনা করেছি।’

একই সময় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে বেরিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘ভ্যাট সমস্যার বাস্তবসম্মত সমাধান করা হবে।’

প্রসঙ্গত, ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে গত বুধবার থেকে রাস্তায় নামে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। প্রথমে রাজধানীর রামপুরায় ইস্ট-ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এসময় পুলিশ তাদের ওপর গুলিও চালায়। এ ঘটনার পরই মূলত আন্দোলন আরো জোরালো হয়। সঙ্গে যোগ দেয় অন্যান্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার্থীরা।

অবশেষে ভ্যাট প্রত্যাহারের সংবাদ আন্দোলনকারীদের কাছে পৌঁছলে আনন্দ-উল্লাসে ফেটে পড়ে তারা। সোমবার দুপুর ১টার দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা অবরোধ উঠিয়ে নেয়। এসময় বিজয় মিছিল করতে করতে ক্যাম্পাসে ফিরে যায় তারা।






মন্তব্য চালু নেই