মেইন ম্যেনু

অবসরের কথা ভাবছেন না আফ্রিদি

শহীদ আফ্রিদির মনে অবসরের চিন্তা উদয় হওয়া নতুন কিছু নয়। কয়েক বছর আগে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েও পরে তা থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। এর পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন গত বছর। তবে এখন পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের কণ্ঠে ভিন্ন সুর। অবসরের ভাবনা একপাশে সরিয়ে দুটি গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের দিকে তাঁর দৃষ্টি।

এই দুটি টুর্নামেন্টের প্রথমটি চলমান এশিয়া কাপ। তার পর মার্চ-এপ্রিলে ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। শুক্রবার পাকিস্তান দলের প্র্যাকটিসের ফাঁকে সাংবাদিকদের আফ্রিদি জানিয়েছেন, ‘আপাতত অবসরের চেয়ে এশিয়া কাপ আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আমার কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এখন এই দুটি টুর্নামেন্টের দিকেই মনোযোগ দিচ্ছি।’

না দিয়ে উপায়ও নেই অবশ্য। অধিনায়ক বা খেলোয়াড় কোনো ভূমিকাতেই ইদানীং তেমন সাফল্য নেই তাঁর। গত মাসে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে ৩৮ রান আর তিন উইকেট শিকারকে ঠিক আফ্রিদিসুলভ পারফরম্যান্স বলা যাবে না। গত নভেম্বরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটি তিন ম্যাচের সিরিজে পাঁচ উইকেট নিলেও ৫৩ রানের বেশি করতে পারেননি। আফ্রিদির ছন্দহীনতা প্রভাব ফেলেছে পাকিস্তানের পারফরম্যান্সেও। এই ছয় ম্যাচে মাত্র একটি জয় পেয়েছে তারা।

আফ্রিদি নিজেও তাঁর পারফরম্যান্স নিয়ে কিছুটা উদ্বিগ্ন, ‘আমি সব সময় আমার পারফরম্যান্সকে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। কারণ, তা আমার দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। আমার প্রধান শক্তি বোলিং। তবে আমি জানি, যেখানে আমাকে ব্যাট করতে হয়, সেখানে দলের জন্য ভালো অবদান রাখারও সুযোগ থাকে। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ২০ বা ৩০ যত রানই করি না কেন, তা দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’

আজ এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই পাকিস্তানের সামনে ভারত। টি-টোয়েন্টিতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর বিপক্ষে পাকিস্তানের পারফরম্যান্স একদমই ভালো নয়। আগের ছয়টি মুখোমুখি লড়াইয়ে মাত্র একবারই জিততে পেরেছিল তারা। আফ্রিদি অবশ্য অতীত নিয়ে পড়ে থাকতে রাজি নন, ‘ভারতের বিপক্ষে আমরা কী করেছি, তা নিয়ে আমি মোটেই ভাবছি না। কারণ, আমি অতীতে বসবাস করি না।’






মন্তব্য চালু নেই