মেইন ম্যেনু

অবাক করা শিশু, দেখতে বাঘের মত!

বাঘের মত দেখতে বাচ্চার জন্ম দিল এক মা। ঘটনাটি গঠছে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। গত কাল দুপুর ১ টা ৩০ মিনিটি ১ নং ওয়ার্ডের ওটি রুমে জন্ম গ্রহন করে। শিশুটির মায়ের নাম ছালেহা (২০), স্বামীর নাম রফিক। ছালেহা টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বরুহা এলাকায় থাকে । বাঘের মত দেখতে হাত, পা, মুখ চোখ এমনকি শরিরের চামরাও ।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর আজ মঙ্গলবার টাঙ্গাইল মেডিকেলে হাসপাতালে সাধারণ জনগন আসতে থাকে শিশুটিকে দেখার জন্য মানুষ ভীড় করে এবং মোবাইলে মোবাইলে ছবি তুলে তা মুর্হুতের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে মানুষের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

১ নং ওয়াডের বাচ্চা শ্রবন করার অফিসার ইনসার্চ বলেল, বাঘের মত দেখতে হাত, পা, মুখ চোখ , সারা শরীরে লাল রেখাকৃতি এক পুত্র শিশুর জন্ম গ্রহন করে। এই ঘটনাটি এভারই প্রথম ঘটেছে। আমরা কিছুটাও অভাক হয়েছে। ঘটনাটি জানাজানি হওযার পর শিশুটিকে দেখার জন্য মানুষ ভীড় করে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জুনিয়র কনসাল্টেন্ট এর নাজমা খলিল বলেন, সালেহা বেগমের তল পেটে ব্যাথা হয়েছে এই চিন্তা করে হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে এসেছে । সব কিছু টেকাপ করে দেখা যায় তার পেটে ৯ মাসের সন্তান। সালমা এ সন্তানের ব্যাপারে কিছুই জানত না। গত কাল ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার বাচ্চা প্রসব করার জন্য ভতি হয়। গতকাল সোমবার বাচ্চাটি জন্ম গ্রহন করলে দেখা যায় দুই হাত, দুই পা বিশিষ্ট শিশুর বড় বড় দুইটি চোখ লাল গোলাকার, মুখমন্ডল গোলাকৃতি ও মুখ বড়। ঠোট দুই মোটা ও মুখে বড় বড় দুইট দাঁত রয়েছে। পরে শিশুকে প্রসবের পরপরই মা ও শিশুকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

সাধারন জনগনের সাথে আলাপ করলে তার বলেন, আমরা শিশুটিকে দেখতে হাসপাতালে এসেছি। শিশুচির ছবি মানুষের মোবাইলে মোবাইলে রখেছে। আমরা তাদের কাছ থেকে ছবিটি দেখেছি। আমাদের কাছে বাঘের মত দেখতে মনে হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই