মেইন ম্যেনু

অভিমান করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসা যুবতীকে পুলিশ পরিচয়ে ধর্ষণ!

অভিমান করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসা এক যুবতীকে চা বাগান এলাকায় নিয়ে ধর্ষণকালে এলাকাবাসী পুলিশের সোর্স পরিচয়দানকারী প্রতারক হারুনকে (৩৫) ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এ ঘটনায় নির্যাতিত যুবতী বাদি হয়ে কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার বেলা আড়াইটায় কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানের ফাঁড়ি কানিহাটি এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, নিজেকে পুলিশের সোর্স দাবিদার হারুন মিয়া সাধারণ মানুষকে নানাভাবে হয়রানি করে।

অভিযুক্ত হারুন রাস্তায় মেয়েটিকে পেয়ে ফুঁসলিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কানিহাটি চা বাগানের প্লান্টেশন এলাকায় ধর্ষণ করে। চা শ্রমিকরা ঘটনাটি দেখে প্রতারক হারুনকে ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

নির্যাতিতা বলেন, ‘বাড়িতে নিয়ে যাবার কথা বলে প্রতারক হারুন আমাকে কানিহাটি চা বাগানে নিয়ে যায়। আপত্তি জানালে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। এ সময়ে হারুনকে বাবার সমান বলে কান্নাকাটি করেও মাপ পাইনি।’

তবে পুলিশি হাজতে থাকা হারুন মিয়া নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছে। এ ঘটনায় আমেনা আক্তার বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ধর্ষণের ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলার সত্যতা স্বীকার করে কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, ‘আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই