মেইন ম্যেনু

অভিযোগপত্রে ১১ মাসের শিশু, ব্যাখ্যা চাইলেন আদালত

রাজধানীর মিরপুর থানার একটি চুরি ও মারামারি মামলার অভিযোগপত্রে রুবেল নামে ১১ মাসের শিশুকে আসামি করায় তদন্তকারী কর্মকর্তার কাছে ব্যাখ্যা চাইলেন আদালত।

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম খুরশীদ আলম মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক মারুফুল ইসলামকে সশরীরে আগামী ১৬ মে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয় ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন।

অভিযোগপত্রে মৃত ব্যক্তি আরিফুর রহমানকে কেন আসামি করা হয়েছে সে বিষয়েও ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন আদালত।

এর আগে, আসামি পক্ষের আইনজীবী শফিকুল ইসলাম মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মামলার বাদীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা চেয়ে আদালতে একটি আবেদন করেন।

আবেদনে উল্লেখ করা হয়, আসামি রুবেল গত বছরের ৬ জুন জন্মগ্রহণ করেন। অপরদিকে আরিফুর রহমান ২০১৩ সালের ৩১ জুলাই মৃত্যুবরণ করেন। ওই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ২৬ জুন মিরপুরের বাসিন্দা হাবিবুর রহমান মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের সময় রুবেলের বয়স ছিল ২০ দিন এবং আরিফুর রহমান ঘটনার তিন বছর আগে মৃত্যুবরণ করেন।

২০১৭ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা দুই ব্যক্তিসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। যা মানবতার চরম লঙ্ঘন এবং নবজাতকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা আইনের লঙ্ঘন।

নবজাতকের বাবা আবুল কাশেম বলেন, ‘আমার ছোট ছেলে রুবেল। যার বয়স ১১ মাস। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সময় তার বয়স ছিল ২০ দিন। কিভাবে এত ছোট বাচ্চা মারামারি করতে পারে আর কিভাবেই চুরি করতে পারে?’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রুবেলকে অভিযোগপত্রে ৩০ বছর দেখিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই