মেইন ম্যেনু

অর্থমন্ত্রীকে ‘রাবিশ’ বললেন বিএনপির শাহ মোয়াজ্জেম

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টাকা লুটের ব্যাপারে আমি কিছু জানি না- অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের এমন মন্তব্যের কারণে তাকে রাবিশ ও খবিশ বললেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে যারা এসব কর্মকাণ্ড করেছেন তাদের আটকের দাবিও জানান তিনি।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে “বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং বীর উত্তম শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান” শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক দল’ নামে একটি সংগঠন।

প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের কঠোর সমালোচনা করে দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন তিনি।

মোয়াজ্জেম বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে যা না, তা বলতে বলতে আপনারা প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে সেই একই ভাষায় কথা বলতে শুরু করেছেন। আপনাদের মন্ত্রীত্ব সারা জীবন থাকবে না। একদিন না একদিন আপনাদের বিচারের সম্মুখীন হতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন মোয়াজ্জেম।

মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের ভূমিকা নিয়ে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণা না দিলে এদেশ স্বাধীন হত না। তাই মুক্তিযুদ্ধে জিয়ার অবদানকে খাটো করে দেখলে ইতিহাসকে খাটো করা হবে।

মুক্তিযুদ্ধে শেখ মুজিবুর রহমানের ভূমিকা নিয়ে তিনি বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান একজন বড় নেতা। আমি তাকে সম্মান করি। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের সময় তার কোনো ভূমিকা ছিল না। কারণ সে সময় তিনি পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি ছিলেন। এ সময় জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনি (শেখ হাসিনা) যার কারণে বাংলাদেশে আসতে পেরেছেন, যার কারণে রাজনীতি করতে পারছেন তার কথা ভুলে গেলেন। আপনি যাদের মন্ত্রী বানিয়েছেন তারাই আপনার বাবার হত্যাকারী। তারাই আপনার বাবাকে চক্রান্ত করে খুন করেছে। আপনার দলে কোনো আওয়ামীপন্থি নেতা নেই। সবাই বিভিন্ন দল থেকে এসে আপনার দলে জায়গা পেয়েছে।

দেশের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে মোয়াজ্জেম বলেন, দেশের মানুষ এখন ভালো নেই। গুম, খুম, রাহাজানি, শিশু হত্যা, ধর্ষণ নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী নাগরিক দলের সভাপতি শাহজাদা সৈয়দ মো. ওমর ফারুক পীর সাহেবের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বাংলাদেশ স্বাধীনতা ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, জাবেদ ইকবাল, খালেদা ইয়াসমিনসহ আরো অনেকে।






মন্তব্য চালু নেই