মেইন ম্যেনু

অলিম্পিক খেলোয়াড়দের জন্য বিশেষ কনডম

ব্রাজিলের রিও ডি জেনেরো শহরে খুব শিগগিরই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অলিম্পিক ২০১৬। কিন্তু ব্রাজিলে জিকা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব হওয়ায় অনেকেই চিন্তিত যে, সারা বিশ্ব থেকে অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তে পারে এই ভাইরাস। যে কারণে জিকা থেকে রক্ষা পেতে অলিম্পিকে অংশ নেয়া খেলোয়াড়দের জন্য একটি বিশেষ ধরনের শক্তিশালী কনডমের ব্যবস্থা করেছে অস্ট্রেলীয় অলিম্পিক দল।

সোমবার অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষ খেলোয়াড়দের এই বিশেষ কনডম প্রদান করার ঘোষণা দেয়। যদিও ব্রাজিলের রিও শহরেই মেশিনের মাধ্যমে কনডম প্রদান করা হবে খেলোয়াড়দের কিন্তু নিজেদের খেলোয়াড়দের ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়া কোন ধরনের ঝুঁকি নিতে রাজি নয়। তারা আগে থেকেই নিজেদের বানানো শক্তিশালী কনডম জোগান দেবে খেলোয়াড়দের।

অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষ কনডম প্রস্তুতকারক কোম্পানি স্টারফার্মার সাথে মিলে তৈরি করেছে এই বিশেষ কনডম। এতে এমন এক ধরনের তরল ব্যবহার করা হয়েছে যেটা যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে ছড়ানো রোগ থেকে সুরক্ষা দেবে। গবেষণাগারের পরীক্ষায় তারা দেখেছেন এটি জিকার বিরুদ্ধে প্রায় পূর্ণাঙ্গ সুরক্ষা দেয়।

অস্ট্রেলীয় অলিম্পিক দলের প্রধান কিটি চিলার বলেছেন, ‘দলের স্বাস্থ্য ও সুস্থতা আমাদের কাছে সবেচেয়ে আগে। স্টারফার্মার সাথে আমাদের এই পদক্ষেপে সবাই অতিরিক্ত সুরক্ষা পাবে। তাছাড়া রিওতে যে ভয়াবহ সমস্যা দেখা দিয়েছে সেটা রুখতে এটা খুবই কার্যকরী পদক্ষেপ।’

জিকা ভাইরাস ডেঙ্গু ভাইরাসের মত এডিস মশার মাধ্যমে বিস্তার করে। জিকা আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে যৌন মিলনে রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে সুস্থ দেহেও। কোন গর্ভবতী নারী জিকায় আক্রান্ত হলে তার সন্তানের মাথার আকৃতি হয় অস্বাভাবিক ছোট।

জিকা ব্রাজিলের উৎপত্তি হলেও পরবর্তীতে লাতিন আমেরিকা ও বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একে জরুরি স্বাস্থ্য ঝুঁকি হিসেবে চিহ্নিত করেছে এবং গর্ভবতী কোন নারীকে রিও শহরে না যাওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই