মেইন ম্যেনু

অল্প টাকায় মগজ ধোলাই, পরে পাঁচার

বেকার জীবন অবহেলার জীবন। তার পরে অল্প টাকায় বিদেশে যাওয়া। আবার বিদেশী টাকার হাত ছানী। অল্প সময়ের মধ্যে ধনী। এমন প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষের মগজ ধোলাই করছে মানব পাঁচারকারীরা।

র‌্যাব-৫, রাজশাহীর সিপিসি-২, বাগমারা ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল নওগাঁ সদরের জজকোর্ট এলাকায় অভিযান চলিয়ে মানব পাচারের হাত থেকে তিন নারীকে উদ্ধার করেছে।

উদ্ধারকৃতরা হলেন, ফরিদা পারভীন, ছাবিহা খাতুন ও সাহারা বেগম। তাদের সকলের বাড়ি মাহদেপুরের আদর্শগ্রামে। ওই তিন নারীকে ওমানে পাচারের চেষ্টা করছিল মানব পাচারকারী বাবু।

এসময় মানব পাচারকারী দলের সদস্য আবু হোসেন ওরফে বাবুকে (৩৫) আটক করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আটক করা হয়। তার বাড়ি নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার চকহরিবভ আদর্শগ্রামে।

এ সময় তার নিকট থেকে ইউনিয়ন পরিষদের ছয়টি ফাঁকা পরিচয়পত্র, ছয়টি পাসপোর্ট সাইজের ছবি উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়াও পাচারের কবল থেকে উদ্ধার করা হয় তিন নারীকে।

বুধবার দুপুরে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, রাজশাহীর বাগমারা ক্যাম্পের সাদা পোশাকের গোয়েন্দা দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন, নওগাঁর মহাদেপুরের বাবু দীর্ঘদিন ধরে অসহায় গরিব মানুষদের প্রলোভন দেখিয়ে কম টাকায় বিদেশে যাওয়ার নাম করে পাচার করে আসছে।

এ সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের সাদা পোশাকের দল তার ব্যাপারে গোপন তথ্য সংগ্রহ করতে থাকে। একপর্যায়ে র‌্যাব জানতে পারে, বাবু বিদেশে পাচারের উদ্দেশে কয়েকজন নারীকে নিয়ে নওগাঁ সদরে জজকোর্ট এলাকায় অবস্থান করছে।

ওই সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের অপারেশন দল সেখানে অভিযান চালিয়ে বাবুকে আটক করে এবং তিন নারীকে পাচারের হাত থেকে রক্ষা করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বাবু র‌্যাবকে জানায়, সে মানব পাচারের সঙ্গে জড়িত। এরই ধারাবাহিকতায় ওই তিন নারীকে বিদেশে পাঠানোর নাম করে প্রত্যেকের নিকট থেকে ৩৫ হাজার টাকা নিয়েছে। এরপর তাদের ওমানে পাঁচার কারার চেষ্টা করছিল।






মন্তব্য চালু নেই