মেইন ম্যেনু

অষ্ট্রেলিয়ায় দেখা মিললো বিরল প্রজাতির চোখওয়ালা মাছ!

এক সপ্তাহ আগে অষ্ট্রেলিয়ার একটি হ্রদে বিরল প্রজাতির পাইক ইল মাছ পাওয়া গিয়েছিলো। এবার অষ্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যের সমুদ্র উপকূলে অদ্ভুত চোখের অচেনা প্রজাতির একটি মাছ পাওয়া গেছে।

পান পাতা আকৃতির মাছটির মাথার ওপরে বিশালাকার চোখ দুটি অদ্ভূতভাবে ফুটে উঠেছে। মাছটির মুখ খুবই বড়, দেহের অর্ধেকের বেশিই বলা চলে। দাঁতগুলো করাতের মতো ধরালো। কোনো শিকার একবার এই দাঁতের নিচে পড়লে আর রক্ষা নেই। গোলাপি রঙের মাছটি ৩৮ সেন্টিমিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। পানির ২৭৫ থেকে ৫০০ মিটার গভীরে এই মাছ বিচরণ করে।

মৎস্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, সম্ভবত এটি এনডোস গোসফিস-লোফিওডেস এনডোই প্রজাতির মাছ। অনেকে এটিকে মোনকফিস বলেছেন। এটাকে এনজেলারফিস গোত্রের গভীর সমুদ্রের মাছ বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এরআগে অষ্ট্রেলিয়ার ম্যাককোয়ারি হ্রদে অদ্ভূত আকারের একটি মাছ ধরা পড়ে। মাছটির চেহারায় কুমির ও ডলফিন উভয়ের আদল রয়েছে। অষ্ট্রেলিয়ার একটি জাদুঘরের মাছ সংগ্রাহক মার্ক ম্যাকগ্রাউদার জানিয়েছেন, এটি গভীর সমুদ্রের পাইক ইল মাছ।

মাছটির দাঁত রেজরের মতো ধারালো। এটির দৈর্ঘ্য ১.৮ মিটার। মুখ খুবই লম্বা। খাদ্যের সন্ধানে এই প্রজাতির মাছ ১০০ মিটার পানির গভীরে যায়। মাছটির রাতের বেলা তীরে উঠে আসে। একে ধরা খুই কঠিন। তবে মাছটি বিষাক্ত নয়।






মন্তব্য চালু নেই