মেইন ম্যেনু

অসম্ভব দ্রুত ওজন কমাবে মাত্র ৪৮ ঘণ্টার এই ডায়েট প্ল্যান

আমাদের শরীরের ওজন একদিনে বা অল্প সময়ে কখনো বৃদ্ধি পায় না। অনেক সময় নিয়েই ওজন বৃদ্ধি পায়। কিন্তু যখন বৃদ্ধি পায় আমরা তখন সচেতন হই না। যখন ওজন বৃদ্ধি পেয়ে আমাদের নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যায় বা বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয় তখনই আমরা সচেতন হই। শরীরের এই বৃদ্ধি পাওয়া ওজনও অল্প সময়ে কমানো সম্ভব না বা সম্ভব হলেও ধরে রাখা কঠিন। তবুও অল্প সময়ের কিছু উপায় শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে আনতে আমাদের সাহায্য করে।

শরীরে বিষাক্ত পদার্থ জমে থাকার কারণেও শরীরের ওজন বৃদ্ধি পায়। তাই ওজন কমানোর প্রথম ধাপই হচ্ছে শরীরকে দূষণমুক্ত করা। শরীরকে বিশুদ্ধ বা দূষণমুক্ত করে ওজন কমাতে চাইলে তখন যে খাবারই খাবেন তা অবশ্যই শরীরের জন্য উপকারী হতে হবে এবং সেই সাথে তা দেহের দূষণ দূর করার ক্ষমতা থাকতে হবে।এজন্য অবশ্যই শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় তরলের সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।

তাই এখানে দুটি পানীয় সম্পর্কে আপনাদের জানাবো একটি শরীরের বিপাক ক্রিয়াকে দ্রুত ও কার্যকর করতে সাহায্য করবে যা ওজন কমানোর প্রক্রিয়াকে দ্রুত করবে এবং অন্যটি ওজন কমাবে।

৪৮ ঘণ্টা বা ২ দিনের এই ডায়েট আপনাকে কী করতে হবে? কিছুই না, কেবল পান করতে হবে দুটি বিশেষ পানীয়। একটি সকালে ও একটি রাতে। একটি পানীয় আপনার দেহের বিপাকক্রিয়া বৃদ্ধি করবে, অপর পানীয়টি কমাবে আপনার ওজন। আর এই ডায়েট অনুসরণ করার জন্য সবচেয়ে সঠিক সময় হচ্ছে ছুটির দিন বেছে নেয়া। বিপাক ক্রিয়া বৃদ্ধি করার পানীয়তে থাকে টমেটো যা উচ্চ মাত্রার লিউকোপিন সমৃদ্ধ। এছাড়া এই সময় খেতে পারেন বিভিন্ন শস্যদানা, সবজি ইত্যাদি যা দেহের বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়াকে উন্নত করে। চলুন, জেনে নিই পানীয়টি কীভাবে তৈরি করবেন।

বিপাকক্রিয়া বৃদ্ধির জন্য প্রথম পানীয়-

পানি- ৫০০ মিলি

লেবুর রস- ৬ টেবিল চামচ

টমেটো- ২ টি

রসুন- ৪ কোয়া

বরফ- ৬ টি কিউব

-সব উপকরন একসাথে ব্লেন্ডারে নিয়ে হাই স্পিডে কম সময়ের জন্য ব্লেন্ড করুন। এই পানীয়টি সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে পান করতে হবে ২ দিন। পানীয়টি তৈরি করে সাথে সাথে খেয়ে ফেলতে হবে।

ওজন কমানোর জন্য দ্বিতীয় পানীয়

পানি- ৩০০ মিলি

লেবুর রস- ২ টেবিল চামচ

ম্যাপল সিরাপ- ১ টেবিল চামচ (সুপার শপে কিনতে পাবেন)

মরিচ গুঁড়ো- ১ চা চামচ

আদা- ১ চা চামচ

-সব উপকরণ একসাথে নিয়ে ব্লেন্ড করুন। এই পানীয়টি রাতে ঘুমানোর আগে পান করতে হবে ২ দিন।

এছাড়াও যা করবেন

এই দুই দিন পানির পরিবর্তে প্রচুর পরিমাণে চিনি ছাড়া গ্রিনটি পান করতে হবে। এছাড়া এই দুইদিন ভাত খাবেন না। ওটমিল বা অন্য কোন সিরিয়াল খাবেন এবং আলু ছাড়া অন্য সব সবজি খাবেন। তবে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যেন পরিমাণে বেশি না হয়।
সতর্কতা

যাদের অ্যাসিডিটির সমস্যা রয়েছে তারা এবং শারীরিক ভাবে অসুস্থ কোন ব্যক্তি এটি অনুসরণ করবেন না।

লেখক
শওকত আরা সাঈদা(লোপা)
জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ
এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ
খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)
মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।

সূত্র- naturalhealthcareforyou.com






মন্তব্য চালু নেই