মেইন ম্যেনু

‘অসহিষ্ণুতা’ বিতর্কের জবাবে ঐক্যের বার্তা নরেন্দ্র মোদির

বিভাজন নিয়ে অনেক অজুহাত রয়েছে। কিন্তু আমাদের ঐক্যের দিকেই তাকানো উচিত। মঙ্গলবার রাহুল গান্ধীর আনা ‘অসহিষ্ণুতা’র অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যসভার অধিবেশনে এমনই মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কংগ্রেস সহ-সভাপতিকে তোপ দেগে তিনি বলেন, “দেশ তখনই এগোবে, যখন একতা এবং মমতা আসবে।’’
অসহিষ্ণুতা ইস্যুতে সোমবার থেকেই উত্তপ্ত সংসদ। প্যারিসের জলবায়ু সম্মেলন থেকে ফিরে এসে এদিন রাজ্যসভার অধিবেশনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। তখনই ‘অসহিষ্ণুতা’ প্রসঙ্গ তুলে তাঁকে আক্রমণ করেন রাহুল গান্ধী। অসহিষ্ণুতা বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। যদিও নরেন্দ্র মোদি সুকৌশলে যুবরাজের এই প্রশ্ন এড়িয়ে গিয়ে পাল্টা বলেন, কাউকে তার স্বদেশপ্রেমের প্রমাণ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। সকলের কাছে একতার আবেদন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য, “দেশ আমাদের দিকে দেখছে। আমাদেরও দেশের প্রতি কিছু দায়িত্ব পালন করা উচিত।’’ একইসঙ্গে সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, “আমাদের সংবিধান কেবল আইনের নয়, সমাজেরও দলিল।’’ সংবিধানকে ‘সর্বোত্তম মার্গদর্শন’ বলেও মন্তব্য করেন মোদী। তিনি বলেন, সংবিধান প্রণয়নের পাশাপাশি ভারতে শিল্পায়নের গুরুত্বের কথাও বাবাসাহেব আগে জানিয়েছিলেন। বাবাসাহেবের এই মহান কাজকে আমরা অস্বীকার করতে পারি না। একটি বৈঠকে বিভিন্ন দিক থেকে বিভিন্ন মতাদর্শ এলেও আমরা সংবিধানের উপরই নির্ভরশীল থাকি। বাবাসাহেবের এই মহান কাজ সম্পর্কে যুব সম্প্রদায়কে সচেতন করতেই সংবিধান দিবস পালন জরুরি বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

সূত্র: কলকাতা






মন্তব্য চালু নেই