মেইন ম্যেনু

অস্ট্রেলিয়ার সফর বাতিল নিয়ে জয়ের নিবন্ধ

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ সফর বাতিল করায় ‘হতাশ’ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। এই সিদ্ধান্তকে তিনি ‘জঙ্গিবাদের বিজয়’ হিসেবে দেখছেন। বিষয়টি নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন শহরের ভিক্টোরিয়া থেকে প্রকাশিত ‘দ্য এজ পত্রিকায় একটি নিবন্ধ লিখেছেন।

পত্রিকাটির মতামত বিভাগে প্রকাশিত হওয়া এই নিবন্ধের শুরুতে জয় লেখেন, ‘হাই স্কুলের যে কোনো খেলোয়াড় আপনাকে বলতে পারে খেলাধুলা দলীয় কার্যক্রম-শৃঙ্খলাকে ত্বরান্বিত করে এবং অন্যের প্রতি সম্মান দেখাতে উৎসাহিত করে। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া বিভাগও দেশ-মানুষের মধ্যে আলোচনা এবং বোঝাপড়ার সেতু হিসেবে কাজ করতে পারে। সঙ্গত কারণে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর বাতিল করার সিদ্ধান্তটি শুধুমাত্র খেলোয়াড়, দর্শকদের জন্য হতাশার নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনের জন্যও হতাশার।’

২৮ সেপ্টেম্বর অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল। কিন্তু নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে তারা সফর স্থগিত করে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ভিভিআইপি নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেয়ার কথা বলা হলেও সফর বহাল রাখেনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

‘২০০০ সালে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার এখন পর্যন্ত কোনোরকম অঘটন ছাড়াই টেস্ট ও ওয়ানডে আসরের আয়োজন করে আসছে বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ার উদ্বেগের কথা জানার পর বাংলাদেশ সরকার তাদের খেলোয়াড়দের অতিরিক্ত নিরাপত্তা দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, যেমনটা রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানদের দেওয়া হয়ে থাকে। তারপরও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের সফর বাতিল করে। আর এই ঘোষণার দিন যদি কেউ বিজয়ী হয়ে থাকে, তা শুধুই জঙ্গিবাদ।’ লেখেন জয়।

তিনি আরো যোগ করেন, ‘ক্রিকেটপ্রেমী ও বাংলাদেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসাবে আমি অস্ট্রেলিয়ার এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করছি। আমি বলতে চাই সহিংসতার হুমকিদাতাদের সামনে আমাদের কিছুতেই মাথানত করা উচিত নয়। আমাদের উচিত, ক্রীড়ার শক্তিকে দেশ ও সংস্কৃতির মেলবন্ধনের সেতু হিসাবে ব্যবহার করা।

‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া, উভয় দেশের জন্যই হতাশার। বাতিল হওয়া এ সিরিজ বড় আসরে গুরুত্বপূর্ণ একটা স্থান করে নিয়েছিল। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ক্রমেই বড় হচ্ছে। প্রতিদিনই এর শক্তিবৃদ্ধি হচ্ছে। নিজের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে মুখোমুখি লড়াই প্রতিযোগিতামূলক ও আনন্দদায়ক হয়ে উঠতো। সিরিজটা অনুষ্ঠিত হওয়া উচিত ছিল।’ মন্তব্য জয়ের।

তিনি লেখেন, ‘এ বক্তব্য শুধু আমার একার নয়। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার দলপতি স্টিভ স্মিথও একই মত দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, তিনি ও তার সহকর্মীরা বাংলাদেশের সঙ্গে খেলার জন্য মুখিয়ে ছিলেন। এই সিরিজেই স্মিথ প্রথম কোনো পূর্ণ সিরিজে নেতৃত্ব দিতেন। কাজেই তার বিরক্তি ও হতাশা দুই দেশের বহু ক্রিকেটপ্রেমীকেই ছুঁয়ে গেছে।’

নিবন্ধের শেষ প্যারায় জয় লেখেন, ‘বলা হয়ে থাকে রাজনীতির শেষ চাল হল খেলাধুলা। শান্তির জন্য জঙ্গিবাদকে মাথা নত করাতে খেলাধুলা অন্যতম একটি মাধ্যম। এমনটা (সফর বাতিল) হওয়া উচিত নয়। আবার হওয়া উচিত নয়।’






মন্তব্য চালু নেই