মেইন ম্যেনু

অস্ত্রের জবাব অস্ত্রে

পূর্ব ইউরোপে অস্ত্র মজুতের ঘোষণার দেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় পুতিন বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রকে যথাযথ জবাব দেওয়া হবে।

এক দিন যেতে-না-যেতেই পুতিন আবার জানালেন, তার দেশের অস্ত্রভাণ্ডারে যোগ হচ্ছে নতুন ৪০টি পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র।

তিনি বলেন, ২০১৫ সালের মধ্যেই রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্রাগারে ৪০টি আন্তমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র যোগ হবে। যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রের জবাব অস্ত্র দিয়েই দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার রাশিয়ায় একটি অস্ত্র মেলায় বক্তব্য রাখার সময় পুতিন বলেন, রাশিয়ার সামরিক বাহিনীতে নতুন যে ক্ষেপণাস্ত্র যুক্ত হচ্ছে, তা সর্বাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্রবিধ্বংসী-ব্যবস্থা উপেক্ষা করে সঠিকভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ, পূর্ব ইউরোপের দেশগুলোতে ন্যাটোর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক আধিপত্য বৃদ্ধি ও সবশেষ পোল্যান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র মজুত করার ঘোষণায় রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা প্রভাবশালী দেশগুলোর অভিযোগ, ইউক্রেনের বিদ্রোহীদের অস্ত্র ও যুদ্ধের সরঞ্জাম দিয়ে সাহায্য করছে রাশিয়া। কিন্তু রাশিয়া এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে দাবি করেছে, ইউক্রেনে সংঘর্ষ উসকে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা।

পাল্টাপাল্টি এই অভিযোগের মধ্যেই দুই দেশ অস্ত্রের মহড়ায় লিপ্ত হয়েছে। লোহিতসাগরে নৌবহর মোতায়েন রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়ার নৌবহরও রয়েছে।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন।






মন্তব্য চালু নেই