মেইন ম্যেনু

অস্ত্রোপচারও লাগতে পারে মোস্তাফিজের

ইংল্যান্ডের কাউন্টিতে খেলতে গিয়ে আবারো বাম কাঁধের পুরোনো চোটে ব্যথা পেয়ে শংকার মধ্যে আছেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। সেই জন্য এই পেস বিস্ময়ের কাঁধের অবস্থার খবর জানাতে আগেরদিন রাত পর্যন্ত অনেকেই অপেক্ষা করেছে।

তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এমআরআই রিপোর্টে দুঃসংবাদই পেলেন মোস্তাফিজুর রহমান। বিসিবির ফিজিও-ডাক্তারদের শঙ্কাটা শেষ পর্যন্ত সত্যি প্রমাণ করে তার বাম কাঁধের স্ল্যাপেই (সুপিরিয়র ল্যাব্রাম অ্যান্টেরিয়র অ্যান্ড পোস্টেরিয়র) সমস্যা ধরা পড়েছে। বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় রিপোর্ট নিয়ে ইউনিভার্সিটি অব গ্রিনউইচের অর্থোপেডিক সার্জন টনি কোচারের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল বাঁহাতি পেসারের।

তবে বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজকে সার্জন টনি কী বলেছেন সেটা শেষ পর্যন্ত জানা যায়নি। কিন্তু জাতীয় দলের ফিজিও বায়েজিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, এ ধরনের ইনজুরির চূড়ান্ত সমাধান দুই ভাবে হতে পারে। একটা হচ্ছে ইনজেকশনের মাধ্যমে ওষুধ দিয়ে, আর অন্যটি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে।

সার্জন টনি কোচার হয়তো শেষ পর্যন্ত এর যেকোনো একটি পথই বেছে নেবেন। এছাড়া পুনর্বাসন এবং ব্যথানাশক ইনজেকশনের মাধ্যমে সাময়িক উপশম সম্ভব। তবে ব্যথানাশক ইনজেকশন বা ওষুধ দিয়ে মোস্তাফিজকে না খেলানোর নির্দেশনা বিসিবি থেকে কঠোরভাবেই দেয়া আছে ইংল্যান্ডের কাউন্টির দল সাসেক্সকে। তাই সেক্ষেত্রে হোভে বুধবার রয়্যাল লন্ডন ওয়ানডে কাপে হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে ম্যাচে মোস্তাফিজের খেলা না খেলা নির্ভর করছে স্বাভাবিকভাবে ব্যথা কতটা কমে আসে সেটার ওপর।

উল্লেখ্য গত ২২ জুলাই ন্যাটওয়েস্ট টি২০ ব্লাস্টারে সারের বিপক্ষে ম্যাচে প্রথম বা কাঁধে ব্যথা অনুভব করেন মোস্তাফিজ। এই ব্যথার কারণে খেলতে পারেননি রয়্যাল লন্ডন ওয়ানডে কাপে গ্লস্টারশায়ারের বিপক্ষে গত ২৪ জুলাইয়ের অনুষ্ঠিত ম্যাচটিও।






মন্তব্য চালু নেই