মেইন ম্যেনু

আইএসের কাছ থেকে ইরাকের গুরুত্বপূর্ণ শহর দখল

ইরাকি কুর্দি যোদ্ধারা মার্কিন বিমান বাহিনীর সহায়তায় ইরাকের উত্তরাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ শহর সিনজার ইসলামি স্টেটের (আইএস) কাছ থেকে দখলে নিয়েছে।

গত বছর অতর্কিত আক্রমণে শহরটি আইএসের নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। দীর্ঘদিন চেষ্টার পর অবশেষে গত শুক্রবার শহরটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিল কুর্দি গেরিলারা।

কুর্দিস্তান আঞ্চলিক সিকিউরিটি কাউন্সিল এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছে, আইএসে পরাজিত হয়ে পালিয়ে গেছে। কুর্দি জাতীয়তাবাদী গেরিলা সংগঠন ‘পেসমেগরা’ হামলার নেতৃত্ব দিয়েছে। সিনজার শহরটিতে থাকা গমের খামার, সিমেন্ট কারখানা, হাসপাতাল ও অন্যান্য ভবন নিরাপদে রয়েছে।

২০১৪ সালের আগস্টে আইএস জঙ্গিগোষ্ঠী শহরটি নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকেই সংখ্যালঘু ইয়াজিদিদের ওপর নেমে আসে বিভৎস নির্যাতন। অনেক ইয়াজিদিকে শিরচ্ছেদ করা হয়, আইএসের দাস হয়ে থাকে অনেকে। বিপুলসংখ্যক ইয়াজিদি নারীকে আইএস যোদ্ধারা ধর্ষণ করে।

ইরাকি কুর্দিস্তানের আঞ্চলিক প্রেসিডেন্ট মাসুদ বারজানি সিনজার শহরটিকে বিজয়ী ঘোষণা করে বলেছেন, পশ্চিম প্রদেশের রামাদি এবং উত্তরের মসুল পুনর্দখল করা এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। সিনজারযুদ্ধ মসুল স্বাধীন করার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখবে।

রয়টার্সের প্রতিনিধি জানান, বিপুল সংখ্যক পেসমেগরা যোদ্ধাকে সিনজারের রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। কিন্তু তারা আইএস বা অন্য কোনো সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রতিরোধের সম্মুখিন হয়নি।

তবে কুর্দি কমান্ডাররা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, অনেক জঙ্গি শহরটির বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে থাকতে পারে। পেসমেগরা যোদ্ধারা যে কোনো সময় তাদের হামলার শিকার হতে পারেন।

তথ্যসূত্র : রয়টার্স অনলাইন।






মন্তব্য চালু নেই