মেইন ম্যেনু

আইএস দমনে বলিউডের গান!

মধ্যপ্রাচ্যের চরমপন্থী গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটকে দমন করতে নাকি বলিউডের গান ব্যবহার করছে ব্রিটিশ সেনাবাহিনী। তাও আবার এক পাকিস্তানির পরামর্শে এ কাজ করা হচ্ছে! ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এক প্রতিবেদনে এ দাবি করেছে।

লিবিয়ার সিরতে শহর এখন আইএস জঙ্গিদের দখলে। ১৮৫ কিলোমিটার দীর্ঘ লিবীয় উপকূলও আইএস জঙ্গিরা কব্জা করে নিয়েছে। কী ভাবে ওই এলাকা থেকে আইএস জঙ্গিদের হঠানো যায়, ব্রিটিশ বাহিনী তারই প্রশিক্ষণ দিচ্ছে লিবিয়ার সেনাবাহিনীকে। ইসলামি আইন অনুযায়ী গান-বাজনা করা ও শোনা পাপ। নিজেদের দখল করা এলাকায় শরিয়তি আইন কঠোরভাবে কার্যকর করেছে আইএস। এসব এলাকায় সাধারণ মানুষকে গান-বাজনা করতে দেওয়া হয় না।আর এটিকে কাজে লাগাতে চাইছে ব্রিটিশবাহিনী। বলিউডের চড়া মিউজিক আর তুমুল হুল্লোড়ে ঠাসা চটুল গানের অভাব নেই। লিবিয়ার বিভিন্ন এলাকায় শক্তিশালী সাউন্ডবক্সের মাধ্যমে এখন সেই সব বলিউডি গানই বাজাতে শুরু করেছে ব্রিটিশ বাহিনী।আইএস জঙ্গিদের ঘাঁটি যে সব এলাকায়, সেখানে সাউন্ডবক্স লাগানো গাড়ি পাঠিয়ে চড়া স্বরে বলিউডি গান বাজানো হচ্ছে।

এক পাকিস্তানি বংশোদ্ভুত গোয়েন্দা ব্রিটিশ সেনাকে প্রথম এই পরামর্শ দেন বলে জানা গেছে। পাকিস্তানসহ বিভিন্ন ইসলামি দেশে কট্টরবাদীদের কাছে বলিউড মিউজিক কতটা ‘হারাম’, তা ভালই জানেন ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা। তিনিই ব্রিটিশ বাহিনীকে পরামর্শ দেন, আইএস জঙ্গিদের মনোবল ভাঙতে বলিউড মিউজিক বাজানো শুরু হোক।

বলিউডি গান জঙ্গিদের ঘাঁটি চিহ্নিত করতেও কাজে লাগছে। সাউন্ডবক্স লাগানো গাড়ি যে অঞ্চলে পাঠানো হচ্ছে, তার খুব কাছাকাছি জঙ্গি ঘাঁটি না থাকলে, গাড়িতে হামলা হচ্ছে না। কিন্তু গাড়ি জঙ্গি ডেরার কাছাকাছি পৌঁছে গেলে তাতে হামলা হচ্ছে। না হলে গানের দাপটে অতিষ্ঠ হয়ে রেডিও বার্তায় জঙ্গিরা নিজেদের কর্তৃপক্ষকে জানাচ্ছে সমস্যার কথা। এই রেডিও বার্তায় আড়ি পেতে ব্রিটিশ এবং লিবিয়ার বাহিনী বুঝে নিচ্ছে, ঠিক কোথাও কোথায় গোপন ডেরা রয়েছে জঙ্গিদের। তার পরই সেখানে আক্রমণ চালানো হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই