মেইন ম্যেনু

আইফোন মেরামতের আগে আরেকবার ভাবুন

আইফোন ব্যবহার করেন? আইফোনে যদি কখনো সমস্যা দেখা দেয়ই, সার্ভিসিংয়ের ক্ষেত্রে এখন থেকে একটু সতর্কতা অবলম্বন করতেই হবে। এজন্য অবশ্যই আপনাকে অনুমোদিত কোনো সার্ভিস সেন্টারে ফোনটি মেরামত করাতে হবে। অন্য কোথাও মেরামত করিয়ে নিলে যে সমস্যা দেখা দিবে তার মধ্যে সবচেয়ে প্রকট হল, পরবর্তীতে ফোনের আপডেটগুলো আর ফোনে আসবে না।

আপাত বিড়ম্বনা মনে হলেও গ্রাহকের সুবিধার জন্যেই নতুন এই পদক্ষেপ নিয়েছে অ্যাপল কর্তৃপক্ষ। আর এই সার্ভিসটি দিচ্ছে কাপারশিনো ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। যেখানে অন্য সার্ভিস সেন্টারে আইফোন মেরামত করালেই ফোন চালুর সময় ডিসপ্লেতে ‘এরর ৫৩’ নামে একটি বার্তা প্রদর্শন করবে। ‘এরর ৫৩’ প্রদর্শন মানেই ফোনটিকে অন্য কোথাও মেরামত করানো হয়েছে, যা অ্যাপল দ্বারা অনুমোদিত নয়।

এর আগে কিছু কিছু ব্যবহারকারী অভিযোগ করেছিলেন নতুন ভার্সনে আপডেট করার পর আইফোনটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে গেছে। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে এধরনের অভিযোগ আসতে শুরু করে। একই বছরে আইফোন ৬ মোবাইল বাজারে আসে। দ্য গার্ডিয়ানকে দেয়া একটি প্রতিবেদনে অ্যাপেল প্রতিষ্ঠান দাবি করে অনেক আইফোন ব্যবহারকারী সমস্যার সম্মুখিন হয়েছেন। এর কারণ হলো তারা যে টাচ আইডি সেন্সরটি মোবাইলে লাগিয়েছিল তা প্রতারণাপূর্ণ ডিসপ্লে ছিল। তবে এটা শুধু ডিসপ্লের কারণেই নয় বরঞ্চ ফোনের অন্যান্য ডিভাইস যেগুলো টাচ আইডির সাথে সম্পৃক্ত থাকে ওগুলো দ্বারাও ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

একজন আইফোন ব্যবহারকারী বলেন, ‘আমি আমার আইফোন ৬ স্ক্রিনটি আইফোন অননুমোদিত সার্ভিস সেন্টারে পরিবর্তন করেছিলাম। ফোনটি হাতে পাওয়ার পর ফোনের টাচ সেন্সর কাজ করছিল না। আমি আবার সার্ভিস সেন্টারে ফিরে গেলাম এবং আমার সমস্যার কথা বললাম। তখন সার্ভিস সেন্টারে আমার আগের আসল হোম বাটনটি ফোনে সেট করে দিল। কিন্তু এর পরেও ফোনের টাচ কাজ করছিল না। এরপর আমি আমার আইফোনটিকে আইটিউনস দিয়ে আপডেট করার চেষ্টা করলাম। একটি অনাকাঙ্খিত বার্তা এল আমার ফোনে যেখানে লেখা ছিল এরর ৫৩। এখন আমার ফোনে শুধু আইটিউনসের সাথে সংযুক্ত করার বার্তা প্রদর্শন করা ছাড়া অন্য কোন কাজ করে না।’

অ্যাপল প্রতিষ্ঠানের একজন মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা আইফোনে একটি নিরাপদ ব্যবস্থা প্রবর্তন করেছি যা ফিঙ্গারপ্রিন্টের ডাটা সংরক্ষিত রাখে। যা টাচ আইডির সাথেও সংযুক্ত। যখন আইফোনটি অ্যাপেলের অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টার থেকে মেরামত করানো হবে অ্যাপেলের সার্ভিস সেন্টার ডিসপ্লে এবং ফিঙ্গারপ্রিন্টের সাথে টাচ আইডিও যাচাই করে। এই চেকের কারণে ডিভাইস এবং আইওএস ফিচারগুলো টাচ আইডির সাথে নিরাপদ থাকে।’

তৃতীয় পক্ষ দ্বারা আইফোন সার্ভিস করার অন্যতম কারণ হলো সার্ভিসিং মূল্য। যেখানে আইফোন অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টারে আইফোন ৬ এর ডিসপ্লে পরিবর্তন করতে দরকার হয় ২৫ হাজার রুপি সেখানে সাধারণ সার্ভিস সেন্টারে খরচ হয় মাত্র ২ হাজার রুপি।

কিভাবে কম খরচে আইফোনের সার্ভিস দেয়া যায় তা নিয়ে পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। আইফোন ট্রেড ইন প্রোগ্রামের মাধ্যমে আইফোন হ্যান্ডসেটকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করার চেষ্টা করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই