মেইন ম্যেনু

আইলা আঘাতের ভয়াল ২৫ মে আজ

পার হয়ে গেল এক ভয়াবহ দুর্যোগের সাতটি বছর। ২০০৯ সালের ২৫ মে সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস ও ঘুর্নিঝড়ের প্রভাবে সৃষ্ট সর্বনাশা ‘আইলা’ আঘাত হেনেছিল দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় জনপদে। সেদিন মুহুর্তের মধ্যেই লন্ডভন্ড হয়েছিল সাতক্ষীরার শ্যামনগর, আশাশুনি উপজেলার উপকূলবর্তী বিস্তীর্ণ এলাকা। স্বাভাবিকের চেয়ে ১৪-১৫ ফুট উচ্চতায় সমুদ্রের পানি এসে নিমিষেই ভাসিয়ে নিয়ে যায় উপকূলের মানুষ, গবাদি পশু আর ঘরবাড়ি। ক্ষণিকের মধ্যে গৃহহীন হয়ে পড়ে লক্ষাধিক পরিবার। লাখ লাখ হেক্টর জমির ফসলের ক্ষেত আর চিংড়ি ঘের তলিয়ে যায় পানিতে।

শ্যামনগর উপজেলা প্রকল্প অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, সর্বনাশা আইলার আঘাতে শুধু সাতক্ষীরায়ই নিহত হয় ৭৩ জন নারী, পুরুষ ও শিশু। আর আহত হয় দুই শতাধিক মানুষ। এ ছাড়া তাৎক্ষণিকভাবে এসব এলাকার ৫ লাখ ৯৫ হাজার ১২২ জন মানুষ মুহূর্তেই নিরাশ্রয় হয়ে পড়ে। শুধু শ্যামনগরেই গৃহহীন হয় ২ লাখ ৪৩ হাজার ২৯৩ জন।

এ ছাড়া শ্যামনগরের ৯৬ হাজার ৯১৬টিসহ মোট ১ লাখ বিয়াল্লিশ হাজার ২৪৪টি বসতঘর বিধ্বন্ত হয়। উপজেলার ৪৮ হাজার ৪৬০ পরিবারসহ মোট ১ লাখ ১৪ হাজার পরিবার আইলা’র আঘাতে সরাসরি ক্ষতির সম্মুখীন হয়।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই