মেইন ম্যেনু

আকস্মিক ভূকম্পনে আতঙ্কিত মানুষ

ঘড়িতে তখন সন্ধ্যা ৭টা ৫৫ মিনিট হবে। আকস্মিক কেঁপে উঠলো রাজধানীসহ পুরো দেশ। আবারো অনুভূত হলো ৭ দশমিক ১ মাত্রার তীব্র ভূ-কম্পন। সময়টা ঠিক সন্ধ্যা হওয়ায় রাজধানীতে কর্মজীবী সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ ছিল একান্তই ব্যস্ত। কেউ হয়তো দিনের কাজ শেষে সন্ধ্যায় ঘরে ফিরছিল, কেউ হয়তো একটু আগেই বাসা থেকে কাজের উদ্দেশ্যে বের হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ ঝাকুনিতে সব কিছুই যেন উলোট-পালট হয়ে গেলো।

কাজের ব্যস্ততায় ভূমিকম্পের অনুভূতি সামান্য দেরিতে টের পেলেও পরক্ষণেই নগরবাসীর মধ্যে শুরু হয় ছুটাছুটি। তাদের অনেককেই সুউচ্চ ভবন থেকে সিঁড়ি বেয়ে দৌড়ে নিচে নেমে আসতে দেখা গেলো। চারদিকে শুরু হলো মানুষের হইহুল্লোড়। যে যেভাবে পারছে আত্মরক্ষায় ছুটছে। কেউ কেউ হয়তো সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা রেখে ঘরেই বসেছিলেন।

বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীসহ সারা দেশে অনুভূত ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানা যায়নি।

শুধু বাংলাদেশেই নয়, একই সময়ে ভারত, পাকিস্তান ও নেপালেও এই ভূকম্পন অনুভূত হয়। এর উৎপত্তিস্থল মিয়ানমারের মাওলাইকে বলে জানা গেছে। ভূমিকম্পের গভীরতা ছিল ১২৫ কিলোমিটার।

উল্লেখ্য, রাত পোহালেই বাঙালির ঘরে ঘরে শুরু হবে নববর্ষ উদযাপন। পহেলা বৈশাখের ঠিক আগের রাতে এমন ভূমিকম্প স্বাভাবিকভাবেই নগরবাসীসহ দেশের মানুষের মধ্যে সাময়িক আতঙ্ক তৈরি করেছে।






মন্তব্য চালু নেই