মেইন ম্যেনু

‘আগামী ২০ রোজার মধ্যে শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধ করতে হবে’

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করিম পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন মালিক-শ্রমিক সংঘর্ষ বন্ধ করে মালিক শ্রমিকদের মাঝে সুসম্পর্ক স্থাপনের সেতুবন্ধনের কাজ করে যাচ্ছে। দেশের উন্নয়ন ও উৎপাদনের স্বার্থে মালিক-শ্রমিকের সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ একান্ত প্রয়োজন। ইসলামী শ্রমনীতি বাস্তবায়নের মাধ্যমেই উৎপাদনের সকল ক্ষেত্রে একটি মৌলিক পরিবর্তন আনতে পারে। শ্রেণি বৈষম্য দূর না হলে মালিক-শ্রমিকের সুসম্পর্ক কখনো গড়ে উঠবে না। শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ইসলামী শ্রমনীতি বাস্তবায়নের আহ্বান জানান পীর সাহেব চরমোনাই। আগামী ২০ রোজার মধ্যে সকল শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধ করার দাবি জানান পীর সাহেব চরমোনাই।

২৪ জুন ২০১৬ শুক্রবার বিকেলে দোকান শ্রমিক আন্দোলন-এর উদ্যোগে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে “বিশ্ব সভ্যতা বিনির্মানে শ্রমিকের অবদান শ্রমের মর্যাদা ও শ্রমিকের অধিকার” শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। দোকান শ্রমিক আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ আইউব আলী চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী মুহাম্মাদ জামাল হোসেন-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আশরাফ আলী আকন, বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ ইউনুছ আহমাদ মহাসচিব ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, মুহাম্মাদ খলিলুর রহমান কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন, মুহাম্মাদ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আশরাফ আলী আকন বলেন, মিল-কারখানায় কাম্যমানের উৎপাদনের জন্য মালিক- শ্রমিকের সুসম্পর্কের বিকল্প নাই। শ্রমজীবী মানুষরা আজ জুলুমের শিকার। কৃষক-শ্রমিক ও মেহনতি মানুষকে কলুর বলদ হিসেবে ব্যবহার করে একটি মহল টাকার পাহাড় গড়ে তুলছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মুহাম্মাদ খলিলুর রহমান বলেন, শিক্ষানীতির আলোকে প্রণীত পাঠ্যসুচী প্রমাণ করে শিক্ষানীতি কতটুকু ধর্মবিরোধী। শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন এর আলোকে প্রণীত পাঠ্যসুচী বহাল থাকলে আমাদের সন্তানরা হিন্দুত্ববাদে ধাবিত হবে। কাজেই ৯২ ভাগ মুসলমানের চিন্তা চেতনাবিরোধী এই সিলেবাস বাতিল করে নতুন সিলেবাস প্রণয়ণ করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মুহাম্মাদ আইউব আলী চৌধুরী বলেন, হিন্দুদের সুরক্ষার জন্য ভারতের সহযোগিতা কামনা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের বক্তব্যকে দেশবিরোধী হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, এধরণের বক্তব্য দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে।






মন্তব্য চালু নেই