মেইন ম্যেনু

আজ সেই পৃথিবী থমকে দাঁড়ানোর রাত

বার্সেলোনা-রিয়াল মাদ্রিদ যখন মুখোমুখি হয়, তখন পৃথিবী থমকে দাঁড়ায়। আজ সেই থমকে দাঁড়ানোর রাত। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ম্যাচটা শুরু বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ১১টায়।

প্রায় দশ বছর আগে রিয়াল মাদ্রিদ ডিফেন্ডারদের লিও মেসি নামক বার্সেলোনা-মহাপ্রতিভাকে আটকানোর দুরূহ কাজটা প্রথম বার করতে হয়েছিল। কিন্তু আজ রাতে তার ক্লাসিকোর দশ বছর পূর্তি হয়তো রিজার্ভ বেঞ্চে বসেই পালন করতে হবে মেসিকে!

সেপ্টেম্বর থেকে চোট নিয়ে মাঠের বাইরে এলএম টেন। ক্লাসিকোর আগে প্র্যাকটিস শুরু করলেও ম্যাচের আগের দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বার্সা কোচ লুইস এনরিকে বলেছেন, ‘‘মেসিকে এই ম্যাচে খেলাব কি খেলাব না এখনও জানি না। কিন্তু ওর চোট সেরে গিয়েছে এতেই আমি খুশি।’’ দলেও থাকবেন কি না সেটাও চূড়ান্ত হবে ফিটনেস টেস্টের পর।

মেসির অভাবে অবশ্য চলতি লা লিগায় বার্সেলোনার ভরসার দুই স্তম্ভ হয়ে উঠেছেন নেইমার আর সুয়ারেজ। দেশের জার্সিতে নেইমার শেষ দু’টো ম্যাচে সাধারণ হলেও ক্লাবের জার্সিতে ব্রাজিলের ওয়ান্ডারকিড স্বমেজাজেই। ম্যাচের পর ম্যাচে গোল করে চলেছেন। সঙ্গে দোসর সুয়ারেজ। এহেন যুগলবন্দি সত্ত্বেও বার্সার বহু যুদ্ধের সফল ঘোড়া জাভি মনে করেন, ক্লাসিকোর অনেকটা ভাগ্য মেসির থাকা না-থাকার উপর নির্ভর করছে। ‘‘মেসির ফিটনেসের উপরই নির্ভর করছে সব। ও থাকলে আমরা আরও শক্তিশালী হব।’’

মেসি যখন ক্লাসিকোয় বেঞ্চে বসতে চলেছেন, রোনালদোর আবার তখন হয়তো এটাই বার্নাব্যুতে শেষ এল ক্লাসিকো! গোটা ইউরোপীয় ফুটবল মিডিয়ার খবর, রিয়াল কর্তাদের সঙ্গে সিআর সেভেনের সম্পর্ক দিনের পর দিন খারাপ থেকে খারাপতর হচ্ছে। কোচ রাফায়েল বেনিতেজের উপর এতটাই রাগ রোনালদোর যে, পরের মৌসুমে চলে যেতে পারেন পুরনো দল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে, কিংবা প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে ইব্রাহিমোভিচের সতীর্থ হতে। ’






মন্তব্য চালু নেই