মেইন ম্যেনু

আটত্রিশে পা রাখলেন বলিউডের রানী…

বলিউডের মুকুটহীন রানী তিনি। সিনেমায় অভিনয় করে সাড়া জাগিয়েছেন অসংখ্য ভক্ত অনুকূলের মনে। লাখো তরুণের হৃদয়ে ঠাঁই নিয়েছেন ভালোবাসা আর মমতাময় সব চরিত্রে অভিনয় করে। সেই মুকুটহীন রানী আজ পা রাখলেন আটত্রিশ বছরে। জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা।

১৯৯৬ সালে ‘বিয়ের ফুল’ নামের একটি বাংলা ছবি দিয়ে অভিনয়ে পা রাখেন বলিউডের তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী রানী মুখার্জী। আর এই সাড়া জাগানো বাঙ্গালি কন্যা আজ পা দিলেন ৩৮ বছরে। ভক্ত অনুরাগী আর সহ-অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ভালোবাসায় আজ রীতিমত মুগ্ধ রানী।

রানী মূখার্জীর জন্মটাই মূলত একটি ফিল্ম অরিয়েন্টেড পারিবারিক বলয়ে। বাঙ্গালি বাবাব রাম মূখার্জী ছিলেন একজন নির্মাতা। তার ছিল ‘ফিল্মালয়া’ নামের একটি স্টুডিও। তার মা কৃষ্ণা মূখার্জী নিয়মিত সিনেমার গানে কণ্ঠ দিতেন। তার ভাই রাজ মূখার্জী ছিলেন একজন সিনেমা প্রযোজক, বর্তমানে যিনি নামকড়া একজন নির্মাতাও বটে। তার চাচী দেবশ্রী রায় ছিলেন জনপ্রিয় বাঙ্গালি অভিনেত্রী আর তার কাজিন কাজলতো বিখ্যাত তারকা অভনেত্রী! এমন সিনেমা কেন্দ্রীক পরিবারে যার জন্ম, তিনিও যে অভিনয়ে বহুদূর এগিয়ে যাবেন তা জানা ছিল নিশ্চিত।

আর সেই সুযোগটিই যেন এসে যায় তার জীবনে খুব দ্রুত। মাত্র চৌদ্দ বছর বয়সে ১৯৯২ সালে বাবা রাম মূখার্জীর বাংলা সিনেমা ‘বিয়ের ফুল’-এ অতিথি চরিত্রে প্রথমবার অভিনয় করেন রানী। এর ঠিক ২ বছর পরেই বাবার বন্ধু সেলিম সরকারের অনুরোধে ‘এ গুলি লাগ যায়ে’ নামের চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বলিউডেও অভিষেক হয় তার।

আর এরপর থেকে অসংখ্য বলিউড সিনেমায় তার উপস্থিতি দেখা গেছে। সিনো আলোচকদের প্রশংসা কুড়ানোর পাশাপাশি মাতিয়েছেন বক্স অফিসও। তার অভিনীত অসাধারণ কিছু সিনেমার মধ্যে উল্লেখযোগ্য, কুচ কুচ হোতা হ্যায়, চলতে চলতে, হ্যালো ব্রাদার, চরি চরি চোপকে চোপকে, সাথিয়া, নো ওয়ান কিলড জেসিকা উল্লেখযোগ্য।

তার অভিনীত সর্বশেষ সিনেমা মারদানি। যা ২০১৪ সালে বলিউড বক্স অফিস মাতিয়েছে। আর এই বছরেই দীর্ঘদিনের পরিচিত বন্ধু নির্মাতা আদিত্য চোপড়াকে বিয়ে করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই