মেইন ম্যেনু

আত্রাইয়ে অর্ধমাস জুড়ে আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবিতে মানববন্ধন

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) : নওগাঁর আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের বিরতির দাবিতে গত ৩ আগষ্ঠ থেকে অর্ধমাস জুড়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হচ্ছে। গত শনিবার বেলা পৌঁনে ১২টার দিকে আহসানগঞ্জ রেলওয়ে প্লাটফরমে সর্বস্তরের জনতা শান্তিপূর্ণ ভাবে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে।

এদিকে আত্রাইয়ে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবি কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন কর্মসূচী পালন করা হবে বলে জানান স্থানীয় জনগণ।

জানা যায়, নওগাঁ জেলার একমাত্র বৃহতম আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ ষ্টেশনের উপর দিয়ে প্রতিদিন ঢাকাগামী ৫টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করলেও মাত্র একটি ছাড়া ঢাকাগামী অন্য কোন ট্রেনের বিরতি এখানে নেই। ফলে ঢাকাগামী যাত্রীদের যারপর নেই দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের মধ্যে কেবলমাত্র নীলসাগর এক্সপ্রেসের বিরতি এ ষ্টেশনে রয়েছে। তাও আবার আসন সংখ্যা বরাদ্দ রয়েছে প্রয়োজনের তুলনায় একেবারে অপ্রতুল। এদিকে নীলসাগর এক্সপ্রেস ছাড়াও আত্রাইয়ের উপর দিয়ে প্রতিদিন দ্রুতযান এক্সপ্রেস, রংপুর এক্সপ্রেস, লালমনি এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস নামে আরও ৪টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে। অথচ এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি সত্বেও এসব আন্তঃনগর ট্রেনের বিরতি কার্যকর না হওয়ায় একদিকে যাত্রীরা হচ্ছেন দুর্ভোগের শিকার অন্যদিকে সরকার বঞ্চিত হচ্ছে মোটা অংকের রাজস্ব আয় থেকে।

গত ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসেও একই দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচীসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হয়েছিল। সে সময় একমাত্র নীলসাগর এক্সপ্রেস ছাড়া অন্যান্য ঢাকাগামী ট্রেন মিটারগেজে চলার অজু হাতে এ স্টেশনে স্টপেজ কার্যকর করেননি। গত ২ সেপ্টেম্বর থেকে দিনাজপুর ঢাকার মধ্যে চলাচলকারি দ্রুততযান ও একতা এক্সপ্রেস ট্রেন দু‘টি ব্রডগেজ লাইন দিয়ে চলাচল শুরু করেছে। ফলে এখন এ স্টেশনে যাত্রা বিরতিতে প্লাটফরম ব্যবহারে আর কোন সমস্যা নেই।

আত্রাই উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ বেগম বলেন, আত্রাইয়ে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ দিতে আমরা দীর্ঘদিন থেকে দাবি জানিয়ে আসছি। আত্রাই স্টেশনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের মধ্যদিয়ে এ দাবি আরও তরান্বিত হয়েছে।

আমাদের আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী আন্তনগর ট্রেনের স্টপেজ দেয়া হলে আত্রাই, রাণীনগর, বাগমারা, নলডাঙ্গা ও সিংড়া উপজেলাসহ আশপাশের উপজেলার মানুষের অনেক সুবিধা হবে। আত্রাই উপজেলাসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার মানুষের কথা ও রাজস্ব আয়ের স্বার্থে আত্রাইয়ে ঢাকাগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজের জোর দাবি জানাচ্ছি।






মন্তব্য চালু নেই