মেইন ম্যেনু

আত্রাইয়ে পাঁচ বছর থেকে এসিল্যান্ড পদ শূন্য : বিড়ম্বনায় মানুষ

নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় প্রায় ৫ বছর থেকে সহকারী কমিশনার (এসি ল্যান্ড) পদ শূন্য রয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ এ পদটি গত পাঁচ বছর ধরে শূন্য থাকায় ভ’মি অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম বিলম্বিত হচ্ছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। এ উপজেলায় প্রায় ২লক্ষ মানুষের বসবাস। অবিলম্বে পদটি পূরনের দাবি জানিয়েছেন এ উপজেলার ভ’মি মালিকরা।

তথ্যঅনুসন্ধানে উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২০১১ সালের ৫আগষ্ট তৎকালীন এসিল্যান্ড নূর উদ্দিন আল ফারুক বদলী হয়ে চলে যান। এরপর থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এসিল্যান্ড পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

পাঁচ বছর অতিবাহিত হলেও এখনও এ উপজেলায় নতুন কোন এসিল্যান্ড নিয়োগ দেওয়া হয়নি। ফলে উপজেলার জমি সংক্রান্ত জনগুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম জমির নামজারী (খাজনা-খারিজ) এবং জমিজমা সংক্রান্ত কাজে আসা মানুষের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক কার্য়ক্রম।

ঋুক্তভুগিদের অভিযোগ, ইউএনও তার নিজ দফতরের কাজে ব্যস্ত থাকায় ভ’মি অফিসের কাজে কম সময় দিচ্ছেন। একারণে বিভিন্ন প্রকার ফাইল বন্দি রয়েছে। তাছাড়া ভ’মি অফিসটির স্বাভাবিক কাজকর্মে নানান জটিলতার মধ্যে স্থবির হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক কার্যক্রম।

ইাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভ’মি অফিসের একাধিক কর্মকর্তারা জানান, ইউএনওর কার্যালয় থেকে ভ’মি অফিসের দূরত্ব অনেক বেশি। একারণে ভ’মি অফিসের ফাইলপত্র ইউএনওর দফতরে নেওয়া সম্ভব হয় না। তাছাড়া প্রত্যেক দিন ভ’মি অফিসে ইউএনও স্যার বসেন না।

যেটুকু সময় বসেন অফিসিয়াল ফাইলপত্র স্বাক্ষর করেই সময় যায়। ফলে নামজারী(খারিজ) ও জমিজমা সংক্রান্ত কাজে আসা মানুষের দিনের পর দিন ঘুরতে হয়।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মোখলেছুর রহমান বলেন, আমি গত মাসে এ উপজেলায় এসেছি, তবে আশা করছি উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে অল্পদিনের মধ্যে এ উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদটি নিয়োগ দেয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই