মেইন ম্যেনু

আত্রাইয়ে প্রার্থী মনোনয়নে আহুত বর্ধিত সভায় হট্টগোল, ভাংচুর

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর আত্রাই উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নে আহুত বর্ধিত সভায় হট্টগোল ও ভাংচুরের ঘটনায় বর্ধিত সভা স্থগিত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার সময়ে হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর উত্তেজিত পরিস্থিতিতে ওই ইউনিয়ন পরিষদে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের প্রার্থী মনোয়নের জন্য হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন আ’লীগ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ওই ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে বর্ধিত সভা আহবান করেন। ওই ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি জালাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় আত্রাই থানা আ’লীগ সভাপতি নিপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলাল, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল, চার মনোয়ন প্রত্যাশী যথাক্রমে বর্তমান চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক দুলু, আত্রাই থানা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস শুকুর সরদার, আ’লীগ কর্মী মুনছুর রহমান মাষ্টার হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন মেম্বার, ইউনিয়ন আ’লীগ, ওয়ার্ড আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের ৮৬জন কাউন্সিল উপস্থিত ছিলেন।

সভায় চারজন মনোনয়নপত্র উত্তোলন করায় থানা নেতৃবৃন্দ সমঝোতার মাধ্যমে চার মনোয়ন প্রত্যাশীদের নিয়ে আলাদা বৈঠকে বর্তমান চেয়ারম্যানকে সমর্থন করার জন্য অপর তিন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উপড় চাপ প্রয়োগ করেন। এতে তারা রাজি না হয়ে ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী মনোনয়নের দাবী করেন। এমতাবস্থায় থানা নেতৃবৃন্দ বর্ধিত সভা স্থগিতের ঘোষনা দিলে সভায় উপস্থিত আ’লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা ও হট্টগোলের সৃষ্টি হয়।

এক পর্যায়ে তারা ইউনিয়ন পরিষদের প্রায় ১৫টি চেয়ার ও টেবিল ভাংচুর করেন। উত্তেজিত পরিস্থিতিতে কোন সিধান্ত ছাড়াই ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন থানা নেতৃবৃন্দ।

এবিষয়ে থানা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে মনোয়ন প্রত্যাশী আব্দুস শুকুর সরদার বলেন, ১০হাজার টাকা করে আমি সহ অন্যরা দলীয় মনোনয়নপত্র উত্তোলন করি। বর্ধিত সভায় থানা নেতৃবৃন্দ কোন নিয়মনীতি না মেনে বর্তমান চেয়ারম্যানের পক্ষ নিয়ে তাকে মনোনয়নে সমর্থন করার জন্য আমাদের ওপর চাপ প্রয়োগ করেন। এতে আমরা রাজি না হলে এই অদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আমি সহ অন্যরা ভোটরে মাধ্যমে প্রার্থী মনোনয়নের দাবী করেছি। তা করা হলে ইনশাল্লাহ আমি দলীয় ভাবে নির্বাচিত হবো।

এবিষয়ে আত্রাই উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল সাংবাদিকদের বলেন, আমি আসার পর কি হয়েছে জানি না। তবে বিষয়টি জানার পর আপনাদের জানাবো।

আত্রাই থানার ওসি (তদস্ত) শামসুল আলম জানান, ওই ঘটনায় থানায় এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।






মন্তব্য চালু নেই