মেইন ম্যেনু

আত্রাই রেলওয়ে ষ্টেশনের সংরক্ষিত এলাকায় গড়ে উঠেছে অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা

নওগাঁর আত্রাই রেলওয়ে ষ্টেশনের সংরক্ষিত এলাকা জুড়ে রেললাইনের উভয় পাশে দিন দিন গড়ে উঠছে অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা এতে করে এলাকার ট্রেন চলাচলের মারাত্বক হয়ে পড়েছে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ মাঝে মধ্যে রেললাইনের উভয় পাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করলেও কিছুদিন পর আবারও সেই সব স্থানে গড়ে উঠে ঐসব অবৈধ স্থাপনা। বাংলাদেশ রেলওয়ের (বি আর) আইন অনুযায়ী রেললাইনের উভয় পাশের ২০ ফুট এলাকা বিপদ জনক ও সংরক্ষিত এলাকা কিন্তু আত্রাইয়ে রেলষ্টেশনের সংরক্ষিত এলাকায় রেললাইনের উভয় পাশে একেবারে রেললাইন ঘেঁষে অসংখ্য কাঁচা-পাকা বিভিন্ন ধরনের অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে।

রেললাইন ঘেঁষে দোকানপাট গড়ে উঠায় এলাকার ক্রেতা সাধারণ মূলত রেললাইন দিয়ে পায়ে হেঁটে এসে এসব দোকানগুলোতে কেনা কাটা করে থাকে। শুধু তাই নয়, ওই সব দোকানে ব্যবহৃত পানিসহ সকল বর্জ্য সরাসরি রেললাইনে ফেলছে দোকান মালিকরা। বিশেষ করে হোটেল-রেস্তোরাঁ, চা-স্টল ও পানের দোকানের পানি প্রকাশ্যে এনে রেললাইনে ঢেলে দেওয়া হচ্ছে। ফলে রেললাইন মারাত্বক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এছাড়াও রেললাইনের ওপর কিছু ভ্রাম্যমান ফেরিওয়ালা বসে প্রতিদিন তারা বেচা-বিক্রি করছে।

মাঝে মধ্যে প্রায়ই রেললাইনে মানুষ, গরু ও ছাগল কাটা পড়ে একের পর এক দূর্ঘটনা ঘটছে। আত্রাই রেলওয়ে ষ্টেশন সূত্রে জানা যায়, আত্রাই রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে রাজধানী ঢাকা , বিভাগীয় শহর রাজশাহী ও খুলনা গামী আন্তঃনগর ও লোকাল মিলে ৭টি ট্রেন চলাচল করে। রেলওয়ে ভূসম্পত্তি বিভাগের একটি সূত্র জানায়, ট্রেন চলাচল নিরাপদ করতে মাঝে মধ্যে রেললাইনের ইভয় পাশে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করা হয়। কিন্তু অল্প কিছুদিন যেতে না যেতেই আবারও সেই সব অবৈধ স্থাপনা অবাধে গড়ে উঠে।

এ বিষয়ে আত্রাই রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার ছাইফুল ইসলাম এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, রেললাইনের দুই ধারে অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠায় স্বাভাবিক ট্রেন চলাচল মারাত্বক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ওই সব অবৈধ স্থাপনার কারণে ট্রেন চালকরা সামনে ঠিকমত দেখতে পায়না। এর ফলে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে। তিরি আরো জানান, রেললাইনের উভয় পাশে অবৈধ স্থাপনা ব্যাপারে রেলওয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছ্ যেহেতু এ বিষয়টি জন গুরুত্বপূর্ণ তাই দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণেন জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট এলাকার জনগন জোর দাবি জানিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই