মেইন ম্যেনু

আদালতের নির্দেশে ১১দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের কাজিয়ালপাড়া গ্রামে শহিদুল ইসলাম মন্ডল (৪০) নামের এক কৃষককে আদালতের নির্দেশে গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেঢ মোহাম্মদ আমিনূল ইসলাম খানের নেতৃত্বে ও পাংশা থানায় ওসি আবু শামা মোঃ ইবকাল হায়াতের উপস্থিতিতে হরিনাডাঙ্গা সপ্তগ্রাম কবর স্থান থেকে এ লাস উত্তলন করা হয়।

পাংশা থানার এস আই শাখাওয়াত হোসেন লাশের সুরতাহাল টির্পোট তৈরী করেন প্রসঙ্গত গত ৯ মার্চ রাতে পরকীয়ার জের ধরে শহিদুল ইসলাম মন্ডল নামের এ ব্যাক্তিকে হত্যার পর স্বাভাবিক মৃত্যু বলে লাস দাফন করা হয় পরবর্তীতে এ ঘটনা ফাঁস হয়ে পড়লে নিহত শহিদুল ইসলামের বড় ভাই বাদী হয়ে রাজবাড়ীর আদালতে সোহেল রানাকে প্রধান আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

নিহত শহিদুল ইসলামের স্ত্রী রহিমা খাতুন সাংবাদিকদের বলেন সোহেল ওই রাতে দুধের মধ্যে ঘুমের ঔষুধ মিশিয়ে অজ্ঞান করার পর রাত আনুমানিক দেড় টার দিকে এসে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে এবং তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখায়। পাংশা থানার ওসি আবু শামা মোঃ ইবকাল হায়াত বলেন হত্যা মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করা হচ্ছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেঢ মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেঢ এর নির্দেশ মোতাবেক এ লাস উত্তলনে আমি নেতৃত্ব প্রদান করছি। এ সময় ওই কবর স্থানের চতুর পাশে হাজার হাজার উৎসুখ জনতার ভীর জমে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই