মেইন ম্যেনু

আদালতে রিশা হত্যার দায় স্বীকার ওবায়দুলের

রাজধানীর কাকরাইলে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশা হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে ওবায়দুল খান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রমনা থানার পুলিশ পরিদর্শক আলী হোসেন জানান, ছয় দিনের রিমান্ডের চতুর্থ দিন সোমবার ওবায়দুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব জবানবন্দি গ্রহণ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ১ সেপ্টেম্বর ওবায়দুলের ৬ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

রিশা হত্যায় যে চাকু ব্যবহার করা হয়, সেই চাকু বিক্রেতা মোহাম্মাদ হোসেনও একই আদালতে সাক্ষী হিসেবে জবানবন্দি দেন।

২৪ আগস্ট দুপুর ১২টার দিকে কাকরাইলের উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের সামনের ফুটওভারব্রিজে রক্তাক্ত অবস্থায় রিশাকে পাওয়া যায়। পরে ২৮ আগস্ট সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিশার মৃত্যু হয়।

ঘটনার দিনই রিশার মা বাদী হয়ে রমনা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ইস্টার্ন মল্লিকা শপিং কমপ্লেক্সের একটি দর্জির দোকানের কর্মী ওবায়দুল খানকে আসামি করা হয়।

গত ৩১ আগস্ট নীলফামারীর ডোমার উপজেলার সোনারায় বাজার থেকে ওবায়দুলকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাঁর গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের মিরাটঙ্গী।






মন্তব্য চালু নেই