মেইন ম্যেনু

আদেশের অপেক্ষায় কারা কর্তৃপক্ষ

রোববার রাতেই মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ড পাওয়া জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে।

আদালতের আদেশের কপি হাতে পেলে এই বদর বাহিনীর প্রধানকে ফাঁসিতে ঝোলানোর চূড়ান্ত প্রক্রিয়া শুরু করবে কারা কর্তৃপক্ষ।

কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার নেছারুল হক বলেন, আদেশের কপি সোমবার দুপুর পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। আদেশের কপি এলেই জেল কোড মেনে ফাঁসি কার্যকরের ব্যবস্থা করা হবে। আদেশ কবে আসবে তা আদালতই ভালো বলতে পারবেন।

কারাগারে নিজামীকে চূড়ান্ত আদেশের কপি পড়ে শোনানোর পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে একজন ম্যাজিস্ট্রেট তার কাছে গিয়ে প্রাণভিক্ষার বিষয় নিয়ে কথা বলবেন। তিনি যদি প্রাণভিক্ষা না চান তাহলে ফাঁসি কার্যকরে আর কোনো বাধা থাকবে না। অবশ্য এর আগে তাকে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে শেষ সাক্ষাতের সুযোগ দেওয়া হবে।

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর নিজামীকে ফাঁসির আদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। পরে ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন নিজামী। ট্রাইব্যুনালের দেওয়া ফাঁসির আদেশ বহাল রেখে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি রায় ঘোষণা করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

গত ১৫ মার্চ আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। এরপর ২৯ মার্চ নিজামীর আইনজীবীরা সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন জমা দেন। নিজামীর বিরুদ্ধে আনা ১৬টি অভিযোগের মধ্যে আটটি ট্রাইব্যুনালে প্রমাণিত হয়।

রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে কাশিমপুর থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনার পর বিশেষ একটি সেলে রাখা হয়েছে নিজামীকে। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তারের পর থেকেই নিজামীকে কাশিমপুরের কারাগারে রাখা হয়েছিল।






মন্তব্য চালু নেই