মেইন ম্যেনু

আনসারুল্লাহর হুমকিতে সতর্ক পুলিশ

গণমাধ্যমকে দেয়া আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের হুমকিতে সতর্ক চট্টগ্রামের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এ হুমকির সঙ্গে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম জড়িত কিনা বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)।

সম্প্রতি আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ইমেইল থেকে ছয় দফা নির্দেশনা সম্বলিত একটি বার্তা চট্টগ্রামের শীর্ষ গণমাধ্যম কার্যালয়গুলোতে পাঠানো হয়। এ নির্দেশনা মানা না হলে পত্রিকায় চাকরিরত সাংবাদিক ও মালিকপক্ষকে নাস্তিক বা নাস্তিক্যবাদের সহায়ক শক্তি হিসাবে গণ্য করে সমূলে উৎপাটন করার হুমকি দেয়া হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, সংবাদ মাধ্যম থেকে নারীদের চাকরিচ্যুত করতে হবে। ইসলামবিরোধী ও নাস্তিক্যবাদী শক্তির কোনো প্রকার প্রচারণায় শামিল হওয়া যাবে না। ইসলামি সেনানিদের বিরুদ্ধে কোনো প্রকার অপপ্রচার চালানো যাবেনা। পত্রিকার বিজ্ঞাপনে নারী মডেলের ছবি ও কোনো নারীর বেপর্দা ছবি ছাপানো যাবে না। বিনোদন পাতা, নৃত্য, গীত, নাটক, সিনেমা এমন যে কোনো ইসলামি শরিয়ত বিরোধী জিনিস ছাপানো যাবে না, যা সমাজে ফিতনা ছড়ায়, যুবক-যুবতীদের মনে যৌনতা উস্কে দেয়। যে কোনো নাস্তিকের মৃত্যুর পর পত্রিকায় কোনো প্রকারের জেহাদ বিরোধী সংবাদ প্রকাশ করা যাবে না।

বার্তায় আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদর দপ্তর চট্টগ্রামে বলে উল্লেখ করা হয়। বার্তায় ১৯ অক্টোবর থেকেই এসব নির্দেশনা সংবাদ মাধ্যমের জন্য আইন হিসাবে কার্যকর হবে বলে হুমকি প্রদান করা হয়। এই বার্তায় র‌্যাব ও সিএমপি গণমাধ্যম কর্মী ও কার্যালয়গুলোতে বিশেষ সতর্কতা জারি করে।

এই হুমকির সঙ্গে জড়িতদের সনাক্তের কাজ চলছে উল্লেখ করে সিএমপির সহকারী কমিশনার বাবুল আক্তার জানান, আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের এ হুমকি নিয়ে পুলিশ সন্দিহান। চট্টগ্রামে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের প্রধান সদর দপ্তর আছে বলে কোনো রকম তথ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে এ মুহুর্তে নেই।

জঙ্গি সংগঠনের তৎপরতা নিয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কাজ করছে উল্লেখ করে সিএমপি কমিশনার আব্দুল জলিল মন্ডল বলেন, জঙ্গিদের কাজের সূত্র ধরে তাদের খুঁজে বের করার জন্য পুলিশ সবসময় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

সংগঠনটির প্রথম হুমকি ছিলো, গণমাধ্যমে কর্মরত নারীদের চাকরিচ্যুত করতে হবে। এ ধরনের হুমকিকে অগ্রহণযোগ্য বলেছেন সিএমপি কমিশনার আব্দুল জলিল মন্ডল।

তিনি বলেন, দেশের ৫০ শতাংশ কর্মজীবী মানুষ যেখানে নারী, সেখানে এ ধরনের হুমকি দিলেই গণমাধ্যমকে কি তা মানতে হবে?

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ইমেইল বার্তাকে গণমাধ্যমের প্রতি হুমকি উল্লেখ করে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী বলেন, এই বার্তা পাঠানোর ব্যাপাটির যথার্থতা ও উদ্দেশ্য আগে যাচাই করতে হবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি এজাজ ইউসুফী বলেন, গণমাধ্যমের ওপর হুমকি আশঙ্কার বিষয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এটি নিয়ে কাজ করতে হবে। এই হুমকির যথার্থতা আর উদ্দেশ্য যাচাই করতে হবে। সরকারের এটিকে হালকাভাবে নেয়ার কিছু নেই। এছাড়া এ ধরনের হুমকি দিয়ে জঙ্গি সংগঠনগুলো গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় বলে মনে করেন সিইউজে সভাপতি।






মন্তব্য চালু নেই