মেইন ম্যেনু

আনু মুহাম্মদকে ‘কটাক্ষ’ করলেন হাছান মাহমুদ

বাগেরহাটে রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রবিরোধী আন্দোলনের নেতা আনু মুহাম্মদের কড়া সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, অর্থনীতির শিক্ষক পরিবেশ বিশেষজ্ঞ হয়ে যাওয়ায় বিপত্তি হয়েছে। তারা অনেক ভুল ও অসত্য তথ্যের ওপর ভিত্তি করে বক্তব্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।

সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন হাছান মাহমুদ।

রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রবিরোধী তেল-গ্যাস ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে শিক্ষকতা করেন। রামপালবিরোধী বামপন্থি সংগঠনের আন্দোলনে তিনিই মুখপাত্রের ভূমিকা পালন করছেন।

জাতীয় কমিটির অভিযোগ কয়লাভিত্তিক এই বিদ্যুৎকেন্দ্র সুন্দরবনের পরিবেশে বিপর্যয় ঘটাবে। তাদের এই বক্তব্যের পক্ষে নানা যুক্তি তুলে ধরেছে জাতীয় কমিটি। গত শনিবার সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব যুক্তি খণ্ডন করেন। প্রধানমন্ত্রীর এই যুক্তি খণ্ডনের পর জাতীয় কমিটি বলেছে, প্রধানমন্ত্রী বিজ্ঞাপনের বক্তব্যের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছেন। আর সোমবার সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় কমিটি আবারও নানা আশঙ্কার কথা বলেছে।

হাছান মাহমুদ বলেন,‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়েও ভুল তথ্য পরিবেশন করছে অনেকে। আমাদের দুর্ভাগ্য হচ্ছে যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদের অর্থনীতি পড়ান। তারা যখন পরিবেশ বিশেষজ্ঞ হয়ে যান তখনই বিপত্তিটা ঘটে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ান রাজনীতি বিজ্ঞান, অর্থনীতি কিন্তু বিশেষজ্ঞ হয়ে গেছেন পরিবেশের। এতেই সৃষ্টি হয়েছে সমস্যা।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ারও কড়া সমালোচনা করেন হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন মনগড়া তথ্য দিয়েছেন। তিনি যে অভিযোগ করেছেন তার কোনো ভিত্তি নেই। তাদের আসল উদ্দেশ্য পরিবেশ রক্ষা নয়, তাদের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা এবং অন্যের ইস্যুকে হাইজ্যাক করে আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের কাছে যাওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা করা।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস ছাত্তার।






মন্তব্য চালু নেই