মেইন ম্যেনু

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে নিজামীর ফাঁসি

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর প্রধান আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের ঘটনায় বিশ্বের বিভিন্ন গণমাধ্যম বেশ গুরুত্বের সঙ্গেই খবর প্রকাশ করেছে।

এদিকে, নিজামীর ফাঁসির আগে পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর নেতারা বিক্ষোভ করেছেন বলে বিভিন্ন খবরে বলা হয়েছে। পাকিস্তান জামায়াতের আমির সিরাজুল হক নিজামীর ফাঁসি সম্পর্কে বলেন, মতিউর রহমান নিজামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে বাংলাদেশ জুলুম করেছে। নিজামীর ফাঁসিতে পাকিস্তানের নীরব থাকা কোনো ভাবেই কাম্য নয় বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

সিরাজুল হক আরো বলেন, মতিউর রহমানের ফাঁসি কার্যকর নিন্দনীয় কাজ। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী মতিউর রহমানকে রক্ষা করার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করতে পারতেন। কিন্তু এই বিষয়ে কর্তৃপক্ষ নীরব ছিল। মতিউর রহমানের ফাঁসি হওয়াটা আমাদের জন্য খুব দুঃখজনক।

এদিকে, পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর নেতা লিয়াকত বালুচ মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন।

ডেইলি পাকিস্তানে `বাংলাদেশে ১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধী জামায়াতে ইসলামির নেতা মতিউর রহমানের ফাঁসি` শিরোনামে খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়েছে, ‘মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর।’এদিকে, এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ‘যুদ্ধাপরাধের দায়ে বাংলাদেশে শীর্ষ ধর্মীয় নেতার সাজা কার্যকর।’

আলজাজিরা বলছে, ‘বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধের দায়ে মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি।’

ডনের খবরে বলা হয়েছে, ‘১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামায়াত নেতা মতিউর রহমানকে ফাঁসি দিয়েছে বাংলাদেশ।’

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে ‘১৯৭১ সালে ধর্ষণ এবং গণহত্যার দায়ে ইসলামিক নেতার ফাঁসি।’

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দ বাজার পত্রিকায় বলা হয়েছে, ‘ফাঁসি হলো নিজামীর।’

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ‘যুদ্ধাপরাধের দায়ে বাংলাদেশে শীর্ষ জামাত নেতার ফাঁসি।’

দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, ‘যুদ্ধাপরাধের দায়ে ইসলামিক দলের নেতার মৃত্যুদণ্ড।’

টাইমস অফ ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, ‘১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধী জামাতের প্রধানের ফাঁসি দিয়েছে বাংলাদেশ।’






মন্তব্য চালু নেই