মেইন ম্যেনু

আন্দোলনরত নার্সরা রাতেও রাজপথে

দাবি আদায়ের আন্দোলন করতে এসে রাস্তায় গাছতলায় রাত কাটছে নার্সদের। সোমবার সকাল থেকে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে বেকার নার্সরা। সন্ধ্যার পরও প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তায় বসে স্লোগান দিচ্ছিলেন, গভীররাত পর্যন্ত চলছিল তাদের অবস্থান ধর্মঘট। তারা বলছেন, তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা এখান থেকে নড়বেন না। ঝড়-বৃষ্টি হলেও তারা এখান থেকে নড়বেন না।

সোমবার রাতেও প্রেসক্লাবের সামনে অন্তত দুই শতাধিক নার্সকে আন্দোলন করতে দেখা যায়। নারী নার্সরা বসে স্লোগান দিচ্ছেন। আর পুরুষ সদস্যরা তাদের ঘিরে ছিলেন। মাঝে মাঝে মাইকে নির্দেশনা দিয়ে বলা হচ্ছে, যদি কেউ কোনো প্রয়োজনে তাদের সীমানার বাইরে যান, তাহলে তারা যেন পুরুষ সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে বা নেতৃত্বস্থানীয় কাউকে জানিয়ে যান।

সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রিনা আক্তার অন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বলেন, আপনার ক্লান্ত হবেন না। ধৈর্য হারাবেন না। ধৈর্যের ফল শুভ হয়।

এ সময় আন্দোলনকারীরা ‘রক্ত নিলেও রক্ত নে, ব্যাচ ভিত্তিক নিয়োগ দে’, ‘পিএসসির সার্কুলার মানি না, মানব না’ ও ‘নার্সদের কিছু হলে জ্বলবে আগুন হাসপাতাল’ বলে স্লোগান দেয়।

রিনা আক্তার আরো বলেন, বাণিজ্য করার জন্য পিএসসি পরীক্ষার মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। নার্স নিয়োগের ক্ষেত্রে তারা বাণিজ্য হতে দেবেন না। দাবি আদায় না করে রাস্তা থেকে উঠবেন না।

১০ বছর পর তাদের কিসের পরীক্ষা নিতে চাইছে পিএসসি- এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা দিয়ে পাস করেই নার্স হয়েছি। তাহলে আবার পরীক্ষা কেন?’

বাংলাদেশ বেসিক গ্র্যাজুয়েট নার্সেস সোসাইটির সভাপতি রাজীব কুমার বিশ্বাস বলেন, তারা সারারাত জেগে থেকে আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। বিষয়টি কতটা অমানবিক। কত কষ্ট করে তারা দাবি আদায়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছেন। কখনোই ভাবতেই পারেননি যে তাদের দাবি আদায়ে এভাবে গাছতলায় রাস্তায়, খোলা আকাশের নিচে রাত কাটাতে হবে।

আন্দোলনের অংশ নেওয়া সাবিনা ইসলাম রাহী বলেন, তারা সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য অন্দোলন করছেন। রাত জেগে রাস্তা-গাছতলায় রয়েছেন। ঠিকমত খাওয়া দাওয়া করতে পারছেন না। প্রচণ্ড গরমে পিচঢালা রাস্তায় বসে আছেন। ঝড়বৃষ্টি হলেও তারা নড়বেন না।

গত ২৮ মার্চ পিএসসি ৩ হাজার ৬১৬ সিনিয়র স্টাফ নার্স পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়। এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল ও আগের মতো জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নার্স নিয়োগ দেওয়ার ও নিয়োগের বয়স ৩৬ বছরে উন্নীত করাসহ বিভিন্ন দাবিতে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে বেকার নার্সরা।

গত ৩০ মার্চ একই দাবিতে তারা শাহবাগ মোড়ে সাড়ে ৩ ঘণ্টা অবস্থান করে সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশ সাউন্ড গ্রেনেড, জলকামান ও লাঠিপেটা করে সরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারী নার্সদের। এতে অর্ধশতাধিক নার্স আহত হন। এরপর তারা রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ডিএনএসের অফিস ঘেরাও করেন। ৩ এপ্রিল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন।






মন্তব্য চালু নেই