মেইন ম্যেনু

আপনিও সুন্দর থাকবেন সারাটিক্ষণ

ঘুরে ফিরে বারবার আয়নার সামনে যাওয়া। উঁকি দিয়ে নিজের চেহারাকে দেখা নিখুঁতভাবে। কেনই বা ইচ্ছা করবে না, এমন সুন্দর কোমল চেহারা হলে সবাই-ই এমন কাজ করে থাকে। অথচ ঋতু বদলের ধাক্কায় কখন জানি চুরি হয়ে যাচ্ছে আপনার সৌন্দর্য। শীতের শুষ্ক হাওয়াতে সবই শুকনো পাতার মতো মর্মর প্রায়। ব্যথিত মনে ক্ষোভ পুষে না রেখে করে নিন টুকিটাকি যত্ন-আত্মি। সামান্য চেষ্টায় দীর্ঘদিন ধরে রাখুন আপনার প্রস্ফুটিত সৌন্দর্য। আপনিও সুন্দর থাকুন সারাটিক্ষণ। তাই আসুন শিখে নেয়া যাক খুটিনাটি কিছু উপায়…

সানস্ক্রিন ছাড়া বাইরে নয়

শীত কিংবা গরমে, ত্বকের সঠিক যত্নে সব ঋতুতেই চাই সানস্ক্রিন। সতেজ আর তারুণ্যদীপ্ত ত্বক ধরে রাখতে সানস্ক্রিন অত্যান্ত জরুরি। সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি ত্বকের ক্যানসার এবং ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ার প্রধান কারণ। তাই ত্বককে কোমল রাখতে নিয়মিত সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। বাইরে যাওয়ার অন্তত ১৫ মিনিট আগে ভালো করে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন। মনে রাখবেন সুন্দর থাকার মোক্ষম অস্ত্র সানস্ক্রিন ছাড়া বাইরে যাওয়া নয়।

ত্বকের আদ্রতা রক্ষা

সময়টা যেহেতু শীতকাল। তাই রুক্ষ্ম আর শুষ্কতার ধকল আপনাকে সহ্য করতেই হবে। তাই বলে তো আর ত্বককে অরক্ষিত রাখা যায় না। ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখতে প্রতিদিন শরীরে ময়েশ্চরাইজিং লোশন এবং মুখে ময়েশ্চার ক্রিম মাখুন। এতে আপনার শরীরের ত্বক ভালো থাকার পাশাপাশি বয়সের ছাপ পড়তে দেবে না। ত্বক টান টান থাকবে।

ত্বকের পরিচর্যা

প্রাকৃতিক উপায়ে ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে হবে। মাঝে মাঝে ত্বকের উপযোগী বিভিন্ন মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকে বাড়তি ময়লা জমতে দেয়া ঠিক নয়। ত্বকের র‌্যাশ, ছোপ ছোপ দাগ, কালোভাব দূর করতে নিয়মিত সামান্য মাত্রায় পরিচর্যা অব্যাহত রাখতে পারেন।

টুকটাক ব্যায়াম

আপনার বয়সের সঙ্গে হয়তো ওজন ঠিকই আছে। যতই ফাস্টফুড খান না কেন তবু ওজন বাড়ে না। কোথাও কোনো বাড়তি মেদ চর্বি নেই। ঠিক এই অবস্থায় আপনি ভাবছেন কষ্ট করে ব্যায়াম করার কি দরকার? হ্যা আপনাকেই বলছি, আপনার শারীরিক অবস্থা এভাবে হয়তো দু’বছর বা পাঁচ বছর পর্যন্তও স্থায়ী হতে পারে। কিন্তু একটা সময় পর না চাইলেও আপনার ওজন বাড়তে থাকবে। দেহের আকারে হয়ে যেতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন। তাই নিজের সৌন্দর্য ধরে রাখতে সামান্য ব্যায়ামের অভ্যাস রাখা জরুরি। ব্যায়াম দেহে রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে দিয়ে ত্বকে অক্সিজেন প্রবাহ বাড়ায়।

সঠিক খাদ্যাভ্যাস

প্রতিদিন যথেষ্ট পরিমাণ ফল এবং সবজি খান। ভিটামিন ‘এ’, ‘সি’ এবং ‘ই’ খাওয়ার ওপর বেশি জোর দিন। এসব ভিটামিন ত্বকে অ্যান্টি-অক্সিজেন হিসেবে কাজ করে ত্বককে ভালো রাখে।

পর্যাপ্ত পানি পান

নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী পানি পান করুন, যাতে পিপাসা না লাগে। এতে শরীর ভালো থাকার পাশাপাশি ত্বকও ভালো থাকবে। ত্বকের কোষ সজীব থাকে।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই