মেইন ম্যেনু

আবারো হবে সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা

আবারো সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (সেরা-১০ ও সেরা-২০) তালিকা প্রকাশের প্রক্রিয়া ফিরে আনা হবে। শিক্ষকদের সততা ও নৈতিকতা ফিরে আনতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় তালিকা প্রকাশের এ প্রক্রিয়া ফিরে আনবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

রোববার ‍সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বিভিন্ন প্রকল্পে অগ্রগতি সংক্রান্ত এক সভার সূচনা বক্তব্য তিনি এ কথা জানান।

নাহিদ বলেন, ‘আগে আমরা ফলাফলের দিক দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সেরা করার জন্য সুস্থ প্রতিযোগিতা করতাম। কিন্তু এখন কিছু শিক্ষক নিজেদের প্রতিষ্ঠানকে সেরা করার অপচেষ্টার অংশ হিসেবে প্রশ্নপত্র ফাঁস করছেন। এ কারণে সেরা প্রতিষ্ঠান নির্বাচনের প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছিল। তবে শিক্ষকদের চেতনা ও নৈতিক মূল্যবোধ জাগ্রত করার জন্য আবারো এ প্রক্রিয়া ফিরে আনা হবে।’

আগামী মঙ্গলবার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে নিয়ে এ বিষয়ে একটি বৈঠক হবে বলেও নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান।

এদিকে, সেরা প্রতিষ্ঠানের তালিকা বন্ধ করে দেয়ার সময় মন্ত্রণালয় থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল যে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরীক্ষার সময় দেন-দরবার করে কেন্দ্রে সুবিধামতো স্থানে ফেলে। এরপর তারা কেন্দ্রের শিক্ষকদের সঙ্গে আঁতাত করে পরীক্ষা শুরুর সঙ্গে সঙ্গে প্রশ্ন নিয়ে উত্তর লিখে নিজেদের পরীক্ষার্থীদের বলে দেয়ার ব্যবস্থা করে। আর এসব তারা করে শুধু মাত্র সেরা হওয়ার জন্য।’

সেরা প্রতিষ্ঠানের প্রক্রিয়াতে ২০১০ সাল থেকে দেখা গেছে, নিয়মিত পরীক্ষার্থীর শতকরা হার, শতকরা পাসের হার, মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হার, পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ও প্রতিষ্ঠানের গড় জিপিএ মূল্যায়নেরভিত্তিতে এ সেরা তালিকা করা হতো।

তবে এর আগের কয়েক বছর শতভাগ পাস এবং সর্বাধিক জিপিএর ভিত্তিতে সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্ধারণ করা হতো।

প্রসঙ্গত, সেরা হতে কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রশ্নপত্র ফাঁস ও অনৈতিক পন্থা অবলম্বন করার অভিযোগে এ বছরের ১০ আগস্ট থেকেই পাবলিক পরীক্ষার সেরা প্রতিষ্ঠান নামে তালিকা প্রকাশ বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছিল।






মন্তব্য চালু নেই