মেইন ম্যেনু

আমাদের সম্পর্কগুলোকে বাঁচিয়ে রাখে বিশ্বাস আর ভালোবাসা

আমাদের সম্পর্কগুলোকে বাঁচিয়ে রাখে বিশ্বাস, আবেগ আর ভালোবাসা। কিন্তু অনেক সময় আবেগের প্রকাশকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। অনেক ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা নিয়ে শুরু হওয়া একটি সম্পর্ক অনেক সময় রূপ নিতে পারে অপমান, অবমাননাকর সম্পর্কে। ভেবে দেখুন এই মুহূর্তে ভালোবাসার সম্পর্কটি আপনার জন্য অবমাননাকর কি না!

সবসময় সতর্ক থাকতে হয় সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে
সঙ্গীকে মর্মাহত করে ফেলতে পারেন এই ভয়ে আপনাকে সারাক্ষণ সতর্ক থাকতে হয় কি? আপনি হয়তো সবসময়ই ভাবছেন, কখন কোন কাজে আবার না তার মনমেজাজ বিগড়ে যায়! অবমাননাকর সম্পর্কে আপনি কী করছেন তা আসলে কোন বিষয় নয়। আপনি হয়তো কোন ত্রুটিই রাখছেন না, তবু আপনি আপনার সঙ্গীর রোষাণলে পড়তে পারেন।

আপনার সঙ্গীটি পারলেও আপনি মত প্রকাশ করতে পারেন না
অবমাননাকর সম্পর্কগুলো ভারসাম্যহীন হয়। আপনার সঙ্গী হয়তো সহজেই বলছে তার পছন্দ, অপছন্দ। কিন্তু আপনি কোন ব্যাপারে সামান্যতম নেতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করলে সে সেটা নিতে পারছে না। তখন সে আপনার বিভিন্নরকম সমালোচনা করছে, মানসিক চাপে পড়ে যাচ্ছেন আপনি। শ্রদ্ধার সম্পর্কে পরস্পরের মতামতের গুরুত্ব থাকা খুবই জরুরি।

আপনার সঙ্গীটি কি আপনাকে অবিশ্বাস করেন
প্রায়ই অবমাননাকর সম্পর্কে ব্যক্তির স্বতঃস্ফূর্ততা নষ্ট হয়ে যায়। যা ধীরে ধীরে সম্পর্কে আনে অবিশ্বাস। তখন আপনার আবেগের প্রকাশগুলোর ভুল মানে বের করতে থাকে আপনার সঙ্গীটি। আপনার নিরানন্দ আচরণে সে দুঃখবোধ করে কিন্তু অর্থ বুঝতে পারে না। তাই আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে।

সম্পর্কের সমস্যাগুলো নিয়ে আলোচনা করা যায় না
আপনি হয়তো অনেকবারই আপনাদের মাঝের দূরত্ব মিটিয়ে ফেলতে চেয়েছেন। কথা বলতে চেয়েছেন সমস্যাগুলো নিয়ে। কিন্তু আপনার সঙ্গীটি যে কোন সমালোচনাকেই ভুল ব্যাখ্যা করছেন, আলোচনা এড়িয়ে যেতে চাইছেন। তখন আপনিও তার মন রাখতে আলোচনা এড়িয়ে যাচ্ছেন। সম্পর্কের এই পরিবেশ আপনার জন্য অবমাননাকর।

আপনি সবসময় বিভ্রান্ত থাকেন
আপনি যখন অবমাননাকর সম্পর্কের শিকার তখন সবসময়ই প্রিয় মানুষটির আচরণ আপনাকে বিভ্রান্ত রাখে। আপনি বুঝতে পারেন না, কোন আচরণ করা ঠিক হবে আর কোনটি ঠিক হবে না। আপনি এই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে যেতে চাইলেও আপনার সঙ্গীর ফাঁদে আটকে যান। তিনি গভীর আবেগের সাথে আপনাকে বলেন, আমার তোমাকে প্রয়োজন বা বলে তুমি আমাকে একা ছেড়ে যেও না। খেয়াল করুন, এখানেও সে নিজের কথাই বলছে। আপনার চিন্তা করছে না। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে প্রায়ই আমরা অসহায় বোধ করি এবং সঙ্গীর কথা মেনে নিই।

এমন হলে তখন কী করবেন?
দু’টি উপায় আছে। এক, আপনি কাউন্সেলিংয়ের সাহায্য নিতে পারেন। আপনার সঙ্গীসহ বা আপনি একাও যেতে পারেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে। দুই, যে সম্পর্কে শ্রদ্ধা নেই, যে সম্পর্ক প্রতি মুহূর্তে আপনাকে অপমান করছে বেরিয়ে আসুন সেই সম্পর্ক থেকে। মানসিক বা শারীরিক কোন প্রকার অবমাননাই সহ্য করা উচিত নয়। নিজেকে ভালোবাসুন, মুক্ত পৃথিবীর দিকে পা বাড়ান, ভালো থাকুন।






মন্তব্য চালু নেই