মেইন ম্যেনু

আমার কাকার সাথে প্রেম করছি, আম্মু মেনেও নিয়েছে সম্পর্কটি

সমস্যা : আমার বয়স ২২ বছর। আমি একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ৩য় বর্ষে পড়ছি। আমার পাশের বাড়ির এক দূর সম্পর্কের কাকার সাথে আমার সম্পর্ক হয় আজ থেকে প্রায় ৭ বছর আগে, তখন আমি দশম শ্রেনীতে পড়ি। সম্পর্কের শুরু থেকেই ও আমাকে অনেক অনেক ভালোবাসে, আমার ভালো/মন্দ বিবেচনা করে আমাকে চলাফেরা করতে বলে। মানে সবসময় আমাকে আগলে রাখতো এবং এখনো একই রকমই আছে এবং আমার প্রতি প্রথম থেকেই তিনি অনেক সিরিয়াস।তারপরও আমি প্রথম থেকে অনেক ভাবতাম যে এটা কি সত্যি ই ভালোবাসা নাকি আমার বয়সের দোষে আমি কোন ভুল করছি। তাই অনেকবার ব্রেকআপ করে ফেলতে চেয়েছিলাম কিন্তু ওর জন্যই পারিনি কিন্তু এখন আমিও ওকে অনেক ভালোবাসি আর আগের মত আর বয়সের দোষ মনে হয়না। যাইহোক, ও এখন দেশের বাইরে থাকে এবং আল্লাহর রহমতে খুব ভালো অবস্থানে আছে। কিন্তু সমস্যা একটাই আব্বুকে নিয়ে। উনি কিছুতেই আমাদের সম্পর্ক মেনে নিবেন না। কারণ আমি একসময় ওকে কাকা বলে ডাকতাম( যদিও দূর সম্পর্কের)।

আমার আম্মু আমাদের সম্পর্ককে খুব কাছ থেকে দেখেছে মানে বুঝতে পারেন যে আমরা দুজন দুজনকে অনেক ভালোবাসি, তাই আমাদের সম্পর্কটা মেনে নিয়েছেন। তবে আমার আম্মু আমাদের শর্ত দিয়েছেন যে আমার আব্বুকে রাজী করাতে আমার আম্মু কোন সাহায্য করতে পারবেন না, কারণ আমার আব্বু উলটো টাইপের, পরে আম্মুকে দোষারোপ করবে। এখন ও দেশে আসতে পারছেনা। ২০১৭ তে আসবে, তাই আমার কোন বিয়ের প্রস্তাব আসলে আমি ঘরের মধ্যে ঝামেলা করে তা আটকাই এবং বলি যে আমি এখনও পড়াশোনা শেষ করার আগে বিয়ে করবোনা। ও ঠিক করে রেখেছে যে ও দেশে আসলে আমার মা বাবা আর ওর মা বাবাকে আমাদের সম্পর্কের কথা বলবে, দরকার হলে হাত পায়ে ধরে হলেও রাজী করানোর চেষ্টা করবে। (ও খুবই সাহসী)। উল্লেখ্য যে, ওর মা বাবা এই সম্পর্কের কথা জানেন কিন্তু উনারা রাজী নন। আর যদি কেউ রাজী না হয় তখন আমরা নিজেরা বিয়ে করে চলে আসবো। তাও যদি না মেনে নেন তাহলে ও আমাকে দেশের বাইরে নিয়ে চলে যাবে। এখন আপনি বলেন আপু, ওর প্ল্যানটা কি ঠিক আছে? যদি ঠিক না থাকে তাহলে প্লিজ আমাদের বলুন আমরা কীভাবে এই সমস্যার সমাধান করবো?

সমাধান: প্রায় প্রত্যেক ধর্মেই বিশেষ কিছু নিকট আত্মীয়কে বিয়ের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আছে। ছেলেটি আপনার কতটা দূর সম্পর্কের বুঝতে পারছি না লেখা পড়ে। যদি ধর্মীয় ভাবে তাঁকে বিয়ে করাটা আপনার জন্য জায়েজ হয়, তাহলে আশা রাখি যে আপনার পিতাও এক সময়ে বুঝবেন। কিন্তু ধরুন তিনি যদি আপনার বাবার নিকট সম্পর্কীয় কোন ভাই হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার পিতা ও তাঁর পরিবারের মেনে না নেয়াটাই স্বাভাবিক।আপনারা নিজের ধর্ম অনুসারে একটু খোঁজ নিয়ে দেখুন যে আপনাদের বিয়ে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে সম্ভব কিনা। যদি সম্ভব হয়, তাহলে সেই যুক্তি দিয়েই বাবাকে বোঝাতে চেষ্টা করবেন যে এটা তো ধর্মের দৃষ্টিতে পাপ কিংবা অন্যায় হয়। আশা রাখি তিনি বুঝবেন।আপনাদের প্ল্যান ঠিকই আছে। তিনি আপনার জন্য সব ছাড়তে পারলে আপনারও সেটা পারতে হবে। তবে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বাবা মাকে রাজি করানোর চেষ্টা করেই যাবে। এতে সবকিছু সুন্দর ভাবে হবে।প্রিয়লাইফ



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই