মেইন ম্যেনু

“আমার প্রেমিক আমারই বড় বোনকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে…”

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তরুণী জানিয়েছেন নিজের দ্বিধা দন্দের কথা। চিঠিটি সংক্ষেপে দেয়া হলো।

“নবম শ্রেনীতে থাকা অবস্থায় প্রথম প্রেমে পড়ি। ছেলেটা ৪ বছর অপেক্ষার পর রাজী হয়েছিলাম। এতবেশী কেয়ার আর ভালোবাসা দেখাত যে সবাই আমাকে ভাগ্যবতী বলত। অন্ধ বিশ্বাস করতাম তাকে। নিজর্ন পার্কে বসে কিস বা স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয়ার চেষ্টা করাকে খারাপ ভাবতাম খুব। কিন্তু বিশ্বাস করতাম উনাকে আর উনার কনভিন্স করার ক্ষমতা এত ভালো ছিল যে পরেই ভুলে যেতাম সব।

রিলেশানের তিনবছর পর হঠাত্‍ তুচ্ছ কারণে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন এবং কিছুদিন পর আমার বড় বোনকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠান। আর আমাকে জানান আমার বোন নাকি আমার চেয়ে বেটার তাই তাঁকেই বিয়ে করতে চান। এরপর থেকে কখনো আমাকে কখনো আমার বোনকে নিয়ে বিয়ের কথা বলেন উনি। আমার বোনের কোথাও বিয়ে হলে সেই বিয়ে ভেঙ্গে দেয়ারও হুমকি দিচ্ছেন। এসবের পর আমি এতটাই ভেঙ্গে পড়ি যে হাসতেও ভুলে গিয়েছিলাম।

বর্তমানে আমি ভার্সিটিতে পড়ছি। একবছর আগে আমার একটা ছেলের সাথে সম্পর্ক হয়েছে, ও আমার অতীতের সব জানে। আমার যে কোন বিপদে প্রয়োজনে সবার আগে ওকে পাশে পাই। কিন্তু , ওর ভেতরেও আমার প্রতি শারীরিক আকর্ষনটা টের পাই আর অতীতের ঘটনার কথা ভেবে ব্রেক আপ করি। কিন্তু, ও এতটা ভেঙ্গে পড়ে দেখে আবার যোগাযোগ হয়। আমি ওর সাথে এই ব্যাপারে খোলামেলা আলোচনা করি তখন ও কিছু কথা বলে (প্রকাশ করা হলো না)। আরও বলে যে এখন থেকে ও নিজেকে কন্ট্রোলে রাখবে। আর রাখছেও। কিন্তু আপু আমি সম্পর্কটা চালিয়ে যাব কিনা দ্বিধায় আছি।”

পরামর্শ:

দেখো আপু, এখানে অনেকগুলো ব্যাপার আছে। প্রথমেই বলে নিচ্ছি, তুমি একটা জঘন্য লোকের পাল্লায় পড়েছিলে। তার কথা মনে করে নিজেকে কষ্ট দেয়ার কোন মানে নেই। সে ৪ বছর ভালোবেসে তোমার জন্য অপেক্ষা করেনি, শরীরের লোভে করেছিল।

দ্বিতীয়ত, ওই লোকটার কারণে বর্তমান প্রেমিককে ভুল বুঝে লাভ নেই। আবার তাকে অন্ধ বিশ্বাস করাটাও চলবে না। ভালোবাসা থাকলে শারীরিক আকর্ষণ থাকবেই। খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু সেটার কারণে বিয়ের আগে কোন রকম শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে যাওয়ার ভুল একেবারেই করবে না। আমার মনে হয় আপাতত প্রেমিকের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার দরকার নেই। তুমি তাকে শর্ত দিয়ে দাও যে তোমার সাথে প্রেম করতে হলে দূরে থেকেই করতে অবে। বিয়ের আগে কোন রকম সম্পর্কে যেতে তুমি রাজি নও। কোন রকম মিষ্টি কথাতেও পটে যাবে না। তারপর দেখ।

যদি ছেলেটির উদ্দেশ্য ভালো হয়ে থাকে, সে তোমার এই শর্ত মেনে চলবে। বরং খুশি হয়েই মানবে। কিন্তু সে যদি রাগ দেখায় বা কৌশলে কিছ করার চেষ্টা করে, অবিলম্বে সম্পর্ক ত্যাগ করবে। আরেকটি কথা, ছেলেটির জবাব কিন্তু আমার পছন্দ হয়নি। তাই একটু সাবধানেই থেকো আপু।প্রিয়.কম






মন্তব্য চালু নেই