মেইন ম্যেনু

আম পরিবহনে ব্যাস্ত কুরিয়ার সার্ভিস

রাজশাহী :মৌসুমী ফল আম। দেশের বিভিন্ন জায়গায় আম পাঠাতে বর্তমানে নগরীর কুরিয়ার সার্ভিসগুলোতে উপচে পড়া ভিড়। ফলে ব্যস্ত সময় পার করছেন কুরিয়ার সার্ভিসের কর্মচারীরা। বাজারে ক্ষিরসাপাত ও গোপাল ভোগ আম বেশি উঠতে দেখা যাচ্ছে।

তাই অন্যান্য জাতের আম না উঠায় বাজারে এসব আমের চাহিদা বেশি লক্ষ্য করা যায়। আর কিছুদিন পরে রমজান মাস। তাই রাজশাহীর বাইরে অনেকের আত্মীয়স্বজন থাকায় তাদের নিকট আম পাঠাতে ভিড় জমিয়েছেন কুরিয়ার সার্ভিসগুলোতে।

সোমবার নগরীর এসএ পরিবহন, সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ও আহম্মদ কুরিয়ার সার্ভিসে গিয়ে দেখা যায়, আম পাঠাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন অনেক মানুষ। তাদের আত্মীয়স্বজন, ভাই, বোনদের নিকট আম পাঠাতে বুকিং দিচ্ছেন কুরিয়ার সার্ভিসগুলোতে।

ঢাকাতে ভাইয়ের নিকট আম পাঠাবেন শাহাদত। তাই আম পাঠাতে বুকিং দেয়ার জন্য দাঁড়িয়ে আছেন এসএ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিসে।

তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ভাইয়ের জন্য ৪০ কেজি ক্ষিরসাপাত আম কিনেছি। কাচা আম কিনেছি যাতে তাড়াতাড়ি না পেকে যায়। কারণ কুরিয়ারের গাড়িতে আমের টুকরির চাপে নষ্ট না হয়। প্রতি কেজি আম ঢাকাতে পাঠাতে বুকিং খরচ লাগছে ১২ টাকা।

যেহেতু কয়েকদিন পর রোজা শুরু হবে। তাই রোজার আগেই আম পাঠাচ্ছি। রোজার দিন সবসময় আম খাওয়াতো হবে না। যাতে আগে থেকে আমের চাহিদাটা পূরণ হয়।

এসএ পরিবহনের ম্যানেজার লিটন বলেন, সারাদেশে এসএ পরিবহনের ৭২টি শাখা আছে। রাজশাহীর শাখায় এসময় ৪০ জন কর্মচারী কাজ করে থাকেন। রাজশাহী থেকে ঢাকাতে আম পাঠাতে প্রতিকেজিতে বুকিং খরচ পড়ছে ১২ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ১৬ টাকা।

প্রতিদিনই সকাল ৮টা থেকে শুরু করে রাত ১০টা পর্যন্ত আমের বুকিং নেয়া হয়। এসব বুকিংকৃত আমের টুকরি দেশের বিভিন্ন জায়গায় পৌছে দিতে প্রতিদিন ৮টা গাড়িতে পরিবহন করছি।

এদিকে গতকাল সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসে গিয়ে দেখা যায়, দেশের বিভিন্ন জায়গায় আম পাঠাতে ভিড় জমিয়েছেন নগরীর বিভিন্ন এলাকার মানুষ। আমের টুকরি নিয়ে দীর্ঘক্ষণ সময় পর করে কুরিয়ার সার্ভিসের বুকিং টিকিট সংগ্রহ করছেন। বুকিং করে পাঠাচ্ছেন তাদের উল্লেখিত ঠিাকানায়।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের লেবার সর্দার ফারুক হোসেন জানান, প্রতিদিন আমের বুকিং দেয়ার জন্য কাজ করছে ২০ জন শ্রমিক। তাই সারাদিন ব্যস্ত সময় কাটাতে হচ্ছে তাদের। মৌসুমী ফল আম। আম বাজারে বেশিদিন সরবরাহ থাকে না। তারপরে আবার কয়েকদিন পর রোজা শুরু হবে।

কুরিয়ার সার্ভিসের ম্যানেজার জাহিদুল ইসলাম জানান, প্রতিদিন আমরা দেশের বিভিন্ন জায়গায় আম পাঠাচ্ছি। রাজশাহী থেকে ঢাকাতে প্রতিকেজি আম পাঠাতে বুকিং চার্জ নিচ্ছি ৮ থেকে ১০ টাকা এবং রাজশাহী থেকে ঢাকার বাইরে পাঠতে ১২ থেকে ১৫ টাকা নিচ্ছি। প্রতিদিন একটা গাড়ি রাজশাহী থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় আম সরবরাহ করছে।

প্রতি গাড়িতে প্রায় ৩০০ আমের টুকরি ধরে। আম পাঠানোর ব্যবসা বেশিদিন থাকে না। প্রতি বছরই এসময় আমের সিজিনে ব্যস্ত সময় কাটাতে হয় কুরিয়ার সার্ভিসগুলোতে।






মন্তব্য চালু নেই